Home Textile Manufacturing স্পোর্টস টেক্সটাইল (Sports Textile)

স্পোর্টস টেক্সটাইল (Sports Textile)

ভূৃমিকা:

প্রাচীনকাল থেকেই খেলাধুলা মানবজাতির একটি প্রিয় অংশ।কমবেশি আমরা সবাই খেলাধুলার সাথে জড়িত অথবা খেলাধুলা দেখে থাকি। যখন শুনি আন্তর্জাতিক কোন ক্রিড়া প্রতিযোগিতা যেমন অলিম্পিক গেমস,ফিফা, লা-লিগা,কোপা আমেরিকা, আইসিসি বিশ্বকাপ শুরু হচ্ছে তখন নিজের অজান্তেই একটা আকর্ষন কাজ করে। একটু চিন্তা করে দেখুন আপনার পছন্দের কোন তারকা যে পোশাকটি পরে বিশ্ব মাতাচ্ছেন তাতে যদি লিখা থাকে Made In Bangladesh তাহলে আপনার অনুভূতিটা কেমন হবে?  আমরা হয়তো অনেকেই এই কথা জানি না যে,  বিশ্বকাপ শুরুর অন্তত বছর দুই-তিনেক আগে থেকে জার্সি নিয়ে পরিক্ষা-নিরিক্ষা শুরু করে দেওয়া হয়,শুধু তাই নয় নিয়ম এর এদিক-ওদিক একটু হলেই বাতিল হয়ে যেতে পারে সেই জার্সি। খুব সহজেই যেন কোন জার্সি নকল না করা যায় সেই বিষয়েও খেয়াল রাখতে হয়। এই জন্য কারখানাগুলো তিন ধরনের জার্সি বানায়। যথা- প্লেয়ার জার্সি, ফ্যান জার্সি,কান্ট্রি জার্সি। আজকে আমরা স্পোর্টস টেক্সটাইল সম্পর্কে আলোচনা করবঃ

খেলাধুলায় ব্যবহ্রত পোশাকের বৈশিষ্ট্য:

১) গ্রীষ্মকালে পরিধানকারীকে শীতল বোধ করানো এবং শীতকালে পরিধানকারীকে উষ্ণ বোধ করানো এমন পোশাক তৈরি করা হয়। 
২) দেখতে আকর্ষণীয়,আরামদায়ক, টিভির স্কিনে স্পষ্ট দেখা যায় এবং দর্শক যেন তার পছন্দের খেলোয়াড়কে জার্সি দেখে চিনতে পারে এমন পোশাক তৈরি করা হয়। 
৩) পোশাকগুলি ঘামরোধী হয়ে থাকে। 
৪) পোশাকগুলি হালকা হয়ে থাকে। 
৫) পোশাকগুলি স্থিতিস্থাপকসম্পন্ন হয়ে থাকে। 
৬) পোশাকগুলি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর UV রশ্মিগুলোর বিপরীতে কাজ করে সরিয়ে দেয়। 
৭) মুক্তভাবে চলাচল সম্পন্ন এমন পোশাক তৈরি করা হয়। 
৮) পরিধানকারীর অসস্তি এবং শ্বাস-প্রশ্বাসের অসুবিধা না হয় এমন পোশাক তৈরি করা হয়। 

খেলাধুলার পোশাকে ব্যবহ্রত কিছু ফাইবারের নাম:

১) কটন: শরীরের ভিতরে-বাইরে যাতে বায়ু চলাচল করতে পারে এবং সস্তা হওয়ার জন্য এই ফাইবার এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে খেলাধুলার পোশাকে।
২) নাইলন: এই ফাইবারটি ঘামরোধক হিসেবে কাজ করে থাকে। দেহে অক্সিজেন সরবরাহ করে এবং ফুটবল (গোলবার), ব্যাডমিন্টন,টেনিস, ভলিবল, বাস্কেটবল ইত্যাদি খেলাধুলার নেট তৈরিতে এটি ব্যবহার করা হয়। 
৩) পলিস্টার: খেলাধুলার পোশাকে পলিস্টার ফাইবার এর ব্যবহার ব্যাপক পরিমাণে হয়ে থাকে। স্পোর্টস জুতাগুলির উপরের কাপড় এবং আস্তরণের কাপড়টি সাধারণত এই ফাইবার দিয়ে তৈরি হয় এবং এটি দামেও সস্তা। 
৪) উল এবং স্পান্ডেক্স: উল সাধারণত শরীরকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে।অন্যদিকে স্পান্ডেক্স বক্সিং এবং পেশাদার কুস্তিগরদের পোশাক তৈরিতে ব্যবহার করা হয়।কারণ এটি বেশ প্রসারণক্ষমতা সম্পন্ন এবং বেশ আরামদায়ক। 

স্পোর্টসওয়্যার এর কিছু বানিজ্যিক নাম: 

1) Coolmax
2) Lumiace
3) Dryarn
4) killat 
5) Dri-release
6) Field sensor
7) Water magic
8) Triactor
9) Sportwool
10) Entrant
11) SYPMPATEX
12) Gore-tex
13) Naiva
14) Hygra

বাংলাদেশে কয়েকটি স্পোর্টসওয়্যার উৎপন্ন ও রপ্তানিকারক কোম্পানির নাম:

1) Orbital Fashion Wear 
2) Vision Buying House Dhaka Ltd 
3) Styles Adam & Eve
4) Progressive Apparels Ltd
5) Aboroni Textile
6) Anu Apparel Fashion
7) TBH Fashion Tex

বিশ্বকাপ ফুটবল জার্সিতে Made In Bangladesh ট্যাগ:

ফুটবল বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অবস্থান পিছনের দিকে থাকায় মাঠের লড়াইয়ে বাংলাদেশ থাকে না।কিন্তু Made In Bangladesh জার্সি থাকে অনেক তারকাদের গায়ে। শুধু জার্সি নয় গেঞ্জি, শার্ট-প্যান্ট নানাধরণের পণ্য লিখা থাকে Made In Bangladesh। ২০১৪ ফুটবল বিশ্বকাপের ব্রাজিলের জার্সির গায়ে লিখা ছিল  “Made In Bangladesh “।

এছাড়াও ২০১৮ ফুটবল বিশ্বকাপে চট্টগ্রাম কেইপিজেডের একটি পোশাক কারখানায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের হাতে তৈরি হয়েছিল আর্জেন্টিনা, জার্মানি, স্পেন, বেলজিয়াম, কলম্বিয়া, মেক্সিকো, স্বাগতিক রাশিয়া দলের অফিশিয়াল জ্যাকেট। ২০১৮ ফুটবল বিশ্বকাপে মেসি – ইনিয়েস্তাদের গায়ে “Made In Bangladesh”  ট্যাগ ছিল। বিশ্ববিখ্যাত ব্যান্ড কোম্পানি অ্যাডিডাস,পুমার মতো প্রতিষ্ঠানের ক্রিড়া সংশ্লিষ্ট পোশাক বাংলাদেশ বানিয়ে থাকে। এগুলোই হচ্ছে আমাদের গর্ব।

শুধু ফুটবল বিশ্বকাপে বাংলাদেশের রপ্তানির পরিমাণ:

বিগত ২ বিশ্বকাপ এর দিকে তাকালে আমরা দেখব ২০১৪ সালের বিশ্বকাপে বাংলাদেশে রপ্তানি করেছিল প্রায় ৭০ কোটি ডলারের পণ্য। ২০১৮ বিশ্বকাপ ফুটবলের আসরে ব্যবহারের জন্য বাংলাদেশ প্রায় ১০০ কোটি ডলার বা ৮ হাজার ৬০০ কোটি টাকার পণ্য রপ্তানি করেছিল। Nike, Abidas, Puma, Columbia এর মতো স্পোর্টসওয়্যার ব্যান্ডগুলো বাংলাদেশ থেকে পোশাক নিচ্ছে। প্রতি বছর তাদের ক্রয়ের পরিমাণও বাড়ছে। স্পোর্টস টেক্সটাইল থেকে প্রতি বছর আমাদের ব্যাপক পরিমাণ টাকার পণ্য রপ্তানি হচ্ছে। টেক্সটাইল সেক্টরে নিজেদের অবস্থান আরো শক্ত করার জন্য স্পোর্টস টেক্সটাইল এর গুরুত্ব অত্যাধিক।

Writer Information:

Raisul Islam Sanjid
South East University (SEU)
Department of textile

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Post

Most Popular

Related Post

Related from author