Saturday, April 20, 2024
More
    HomeCottonলিনেন/ফ্লাক্স ফাইবার এর আলোচনা

    লিনেন/ফ্লাক্স ফাইবার এর আলোচনা

    সুশীল সমাজের এক অপরিহার্য উপাদান হচ্ছে বস্ত্র।বস্ত্র পরিধান ব্যাতীত সভ্য সমাজে চলাচল করার কথা চিন্তা করাও বিকৃত মস্তিষ্কের কাজ। তাই তো মানুষের মৌলিক অধিকারের মধ্যে বস্ত্রের স্থান বেশ পাকাপোক্ত।

    বিশ্বের এই বিশাল জনগোষ্ঠীর বস্ত্রের যোগান দিতে গিয়ে দিন রাত এক করে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে বস্ত্র শ্রমিক ও বস্ত্র প্রকৌশলীরা।

    আদিকালে মানুষ নিজের লজ্জাস্থানের হেফাজতের জন্য পশুর চামড়া ও গাছের ছাল বাকল ব্যবহার করতো। কালের বিবর্তনে টেক্সটাইল ফাইবার থেকে প্রস্তুতকৃত পোশাকের ব্যাবহার করতে শুরু করেছে,

    ঐতিহাসিকগণ ধারণা করেন, টেক্সটাইল ফাইবার হিসেবে লিনেন ফাইবারই সর্বপ্রথম ব্যবহৃত হয়েছে। খৃষ্টপূর্ব ৬০০০ বছর পূর্বে মধ্যপ্রাচ্যে ও মিশরে এই ফাইবার টেক্সটাইল ফাইবার হিসেবে ব্যাবহার হতো বলে প্রমাণ পাওয়া যায়। প্রস্তর যুগে মাছ ধরার জাল তৈরীতে এই ফাইবার ব্যাবহৃত হতো বলেও ঐতিহাসিকগণ ধারণা করেন। নীল নদের অববাহিকায় ফায়ুম নামক স্থানে খ্রীস্টপূর্ব ৪১০০ বছর আগের লিনেন ফাইবারের তৈরী কাপড় পাওয়া গেছে।

    ইহা প্রাকৃতিক ও সেলুলোজিক ফাইবার। যা সাধারণত ধূসর রঙের হয়ে থাকে। এই ফাইবার যে উদ্ভিদ থেকে সংগ্রহ করা হয় তার নাম ফ্লাক্স উদ্ভিদ। যার ফলে এই ফাইবারকে ফ্লাক্স ফাইবার ও বলা হয়। তিসি তৈল নামক এক ধরণের পদার্থ এই উদ্ভিদের অন্যতম ফসল।

    ফ্লাক্স ফাইবার ৯২% সেলুলোজ, ২% হেমিসেলুলোজ, ৪% লিগনিন ও ২% অন্যান্য পদার্থ নিয়ে গঠিত।

    ফ্লাক্স ফাইবার সাধারণত দুইভাগে ভাগ করা যায়। সেগুলো হলো,
    ১. শর্ট স্ট্যাপল ফ্লাক্স ফাইবার।
    ২. লং স্ট্যাপল ফ্লাক্স ফাইবার।

    ফ্লাক্স উদ্ভিদ চাষঃ
    এই গাছ বীজ থেকে জন্মে আর এই বীজ এপ্রিল থেকে মে মাসে ঠান্ডা ও আদ্রতাযুক্ত আবহাওয়া এবং ভালো উর্বর মাটিতে রোপণ করতে হয়। বীজ থেকে চারা হওয়ার পর যখন চারা ৩/৪ ইঞ্চি লম্বা হয় তখন হাত দ্বারা চারার পাশের আগাছা পরিষ্কার করতে হয়। ২-৩ মাসেই চারা ৩-৪ ফুট লম্বা হয়।
    ফুল ফুটতে শুরু করে ফুলের রং প্রথমত হালকা নীল থাকলেও আস্তে আস্তে সাদায় রূপান্তরিত হয়। ফুল নীল থাকাকালীন যে আঁশ সংগ্রহ করা হয় তা সবচেয়ে উৎকৃষ্ট মানের আঁশ। সাদা অবস্থায় সংরক্ষিত আঁশ খানিক মোটা হয় তবে বেশ শক্ত।

    তারপর এই আঁশ সংগ্রহ করে ক্রমান্বয়ে সুতা, ফেব্রিক ও প্রয়োজনীয় উপাদানে রূপান্তর করা হয়।

    লিখেছেনঃ
    মাহফুজ হাসান সাকিব
    ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল
    ৮ম ব্যাচ- বা.তাঁ.শি.প্র.ই

    RELATED ARTICLES

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    - Advertisment -

    Most Popular

    Recent Comments