Tuesday, July 16, 2024
More
    HomeTextile Manufacturingকাপড়কে যেভাবে ভালো রাখবেন....

    কাপড়কে যেভাবে ভালো রাখবেন….

    শরীরের যত্ন তো আমরা সবাই নেই, কিন্তু কাপড়ের ক্ষেত্রেও কি যত্ন কম নেয়া উচিৎ? কাপড়ই যে আমাদের রুচির পরিচায়ক। সুতরাং যার কাপড়ের উজ্জলতা যত বেশি তার মনমানসিকাও ততটাই উজ্জল হয় একথা অনুমেয়।কাপড়ের দাগ লাগাটা একটা স্বাভাবিক ব্যাপার। এমন কোন মানুষ নেই যার কাপড়ে বিভিন্নভাবে দাগ লাগেনি। আর সেটি যদি হয় পছন্দের কাপড়, তবে মনটা যেন আরো খারাপ হয়ে যায়। সেই দাগ তুলতে না পারলে কাপড়টি বাতিল করে দিতে হয়।

    কাপড়ে দাগ লাগা ছাড়া আরেকটি ব্যাপার নিয়ে সবার ভয় থাকে সেটি হলো কাপড়ের রং নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয়। কিছু সতর্কতা বা কৌশল অবলম্বন করলে কাপড়ের রং ঠিক রাখা যায় ও কাপড় থাকে দাগ মুক্ত। চলুন আজ কাপড়ের দাগ তোলার পদ্ধতি এবং রং ঠিক রাখার কিছু উপায় সম্পর্কে জেনে নিন!

    কাপড়ের দাগ বিভিন্নভাবে তোলার উপায়

    (১) ঘাসের দাগ- মাঠে খেলাধুলা করতে গিয়ে বা বসে আড্ডা দিয়ে ওঠার সময় খেয়াল করলেন কাপড়ে ঘাসের দাগ বসে গেছে। এই দাগ দূর করতে বেশ কসরত করতে হয়। এই দাগ দূর করতে দাগের উপর কিছুটা টুথপেস্ট নিয়ে ভেজা ব্রাশ নিয়ে দাগের উপর ঘষে নিতে হবে। যতক্ষণ না পুরোপুরি দাগ উঠে যাচ্ছে ততক্ষণ এভাবে চেষ্টা করুন। এরপর সাধারনভাবে ধুয়ে ফেলুন।

    (২) রটক্তের দাগ- হঠাৎ কেটে গেলে বা কোন ক্ষত থেকে কাপড়ে রটক্ত লাগতেই পারে, যা শুকিয়ে গেলে পুরোপুরি উঠানো সম্ভব হয় না। দোকান থেকে থ্রি পারসেন্ট হাইড্রোজেন পার অক্সাইড যোগার করুন। প্রথমে দাগ লাগা কাপড়টি এতে ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ছুটরি বা ধা’রালো কিছু দিয়ে দাগের অংশটি ঘষে নিন এরপর আরো খানিক হাইড্রোজেন পার অক্সাইড দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। র’ক্ত শুকিয়ে যাওয়ার আগে ধুয়ে ফেললে দাগ ভালোভাবে উঠে যায়। এছাড়া আরেকটি উপায় হচ্ছে দাগ লাগা কাপড়টি পানিতে ভিজিয়ে দাগের উপর লবণ ছড়িয়ে দিন। ভালোভাবে ঘষে নিলে দাগ উঠে যাবে। এরপর সাবান বা ডিটারজেন্ট পাউডার দিয়ে কাপড় ধুয়ে ফেলুন।

    (৩) ঘামের দাগ- ঘামের কারণে শার্ট বা কলারের হলদে দাগ হয়ে যায়। এই দাগ দূর করতে দারুন কার্যকর শ্যাম্পু। যেকোনো শ্যম্পু দিয়ে কলারে লাগিয়ে ভালোভাবে ঘষে নিতে হবে। এরপর ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।(৩) মেকআপের দাগ- মেকআপের সময় অসাবধানতায় কাপড়ে দাগ বসে যেতে পারে। এজন্য একটি ব্রেড নিয়ে সাদা অংশ গুঁড়ো করে নিন। এরপর রুটির গুঁড়ো লিপস্টিকের বা মেকপের দাগের উপর ঘষে নিতে হবে । একটা সময় দাগ পুরোপুরি উঠে আসবে । এরপর কাপড়ে লেগে থাকা গুঁড়ো ঝেড়ে ফেলুন।

    (৪) গ্রিজের দাগ-কাপড়ে গ্রিজ লেগে গেলে দাগের উপর কর্নফ্লাওয়ার ছড়িয়ে দিন। কিছুক্ষণ এভাবেই রাখুন যেন কর্নফ্লাওয়ার গ্রিজ শুষে নিতে পার। তারপর কর্নফ্লাওয়ার ঝেড়ে ধুয়ে নিন।

    (৫) তেলের দাগ-মাথায় তেল দিয়ে ঘুমালে বা খাবার খাওয়ার সময় কয়েক ফোটা তেল পড়ে কাপড় নষ্ট হয়ে যায় । বালিশের কভারে ও কাপড়ে লেগে থাকা তেলের দাগ দূর করতে সাধারন শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেললেই হবে। এছাড়াও আরেকটি উপায় হলো ৩ চা চামচ বেকিং সোডা ও ১ চা চামচ পানি মিলিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এরপর দাগের স্থানটি সামান্য ভিজিয়ে নিয়ে তাতে মিশ্রণটি ঘষে ঘষে লাগান। এভাবে ১ ঘন্টা রেখে দিয়ে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দাগ পুরোপুরি না ওঠা পর্যন্ত আবার একইভাবে চেষ্টা করুন।

    (৬) চকলেটের দাগ-এক্ষেত্রে প্রথমেই দাগ যতোটা সম্ভব তুলে ফেলার চেষ্টা করুন। দাগ কিছুটা হালকা হলে স্যানিটাইজার মিশিয়ে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন সাবান বা পাউডার দিয়ে।

    (৭) হলুদের দাগ-কাপড়ের যে স্থানে হলুদের দাগ লেগেছে সেখানে কিছুক্ষণ লেবু দিয়ে ঘষুন। এরপর রোদে শুকাতে দিন। শুকিয়ে গেলে কাপড় ধুয়ে ফেলুন। এছাড়া গ্লিসারিন ব্যবহার করতে পারেন। দাগের উপর গ্লিসারিন লাগিয়ে রাখুন। এক ঘনটা পর কাপড় ধুয়ে ফেলুন।

    (৮) মেহেদির দাগ-মেহেদির দাগ দূর করার জন্য দুধ বেশ কার্যকর । দাগ লাগা স্থানে দুধ দিয়ে আধ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন।এরপর ডিটাররজেন্ট পাউডার দিয়ে ধুয়ে ফেলুন । দেখবেন দাগ গায়েব ।

    (৯) কালির দাগ-কলমের কালি কাপড়ে লেগেছে। এই কালি দূর করতে অ্যালকোহল ঘষে নিন। তাছাড়া একটি স্পঞ্জ দুধে ভিজিয়ে স্পঞ্জটি দাগের উপর ঘষে নিলেও দাগ উঠে যাবে। তাছাড়া কাপড় সাদা হলে কালি লাগা অংশে লেবু দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন। তারপর সাবধানে ধুয়ে ফেলুন যেন কালি ছড়িয়ে না যায়। কালি লাগার পর যত দ্রুত সম্ভব এই পদ্ধতি অনুসরন করুন। দাগ লাগার পর একবার গুঁড়ো সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেললে দাগ উঠানো সম্ভব নয়। কালি লাগার পর কাপড় ইস্ত্রি করবেন না, এতে দাগ বসে যাবে।

    (১০) চায়ের দাগ-অসাবধানতায় কাপড়ে চা পড়ে যেতে পারে তবে খানিকটা চিনি ব্যবহার করুন এতে দাগ চলে যাবে। (১১) টমেটো কেচাপের দাগ- দাগের উপর ভিনেগার দিয়ে ঘষুন এরপর ধুয়ে ফেলুন।

    (১২) বমির দাগ-ডিটারজেন্টের সাথে লেবুর রস ও ১ টেবিল চামচ লবণ মিশিয়ে নিন । এই মিশ্রণে কাপড় ভিজিয়ে রাখুন এরপর ধুয়ে ফেলুন। দাগ উঠে যাবে। কাপড়ের রং ঠিক রাখার উপায় কাপড়ের রং ঠিক রাখার জন্য কিছু উপাদান রয়েছে, এই উপাদানগুলো কাপড় ধোয়ার সময় মেশালে কাপড়ের রং অনেকদিন পর্যন্ত ঠিক থাকবে।

    (১) ভিনেগার ওয়াশিং মেশিনে কাপড় ধোয়ার সময় ডিটারজেন্টের সাথে এক কাপ ভিনেগার মিশিয়ে নিন । ভিনেগার কাপড়ের রং স্থায়ি হতে সাহায্য করে এবং ডিটারজেন্টের ক্ষতিকর প্রভাব হতে রক্ষা করে । ধোয়ার পর ভিনেগারের গন্ধ চলে যাবে ।

    (২) লবণ- নতুন সুতি কাপড় প্রথমবার ধোয়ার আগে এক বালতি পানিতে আধা কাপ লবন মিশিয়ে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। তারপর ডিটারজেন্ট বা সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে কাপড়ের রং নষ্ট হবে না এবং রং ছড়িয়ে যাবে না। (৩) বেকিং সোডা-বেকিং সোডা কাপড়ের উজ্জ্বলতে বাড়ায়। কাপড় ধোয়ার সময় বালতিতে আধা কাপ বেকিং সোডা দিন। এতে রং ঠিক থাকবে।

    কাপড়ের রং ঠিক রাখতে এই টিপসগুলো মেনে চলুন। আর একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো কাপড় কখোনই কড়া রোদে শুকাতে দেবেন না , এতে কাপড়ের রং খুব দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়।

    লেখাটি অনলাইন আর্কাইভ থেকে সংগ্রহ করা

    RELATED ARTICLES

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    - Advertisment -

    Most Popular

    Recent Comments