Home Life Style & Fashion টেক্সটাইল ও ফ্যাশান হাউজ

টেক্সটাইল ও ফ্যাশান হাউজ


পেশাক মানুষের মৌলিক চাহিদার মধ্যে অন্যতম। পৃথিবীর শুরু থেকেই অন্নের চাহিদা পূরুনের পরই বস্ত্রের প্রয়োজন মানুষের কাছে অনেক বেশী। যার চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতি নিয়ত মানুষ নিজেকে নতুন ভাবে সাজাতে পছন্দ করে। নতুনত্বের ছোঁয়ায় নিজেকে সব সময়ই রাঙিয়ে তুলতে পছন্দ করে মানুষ। যার জন্য সব সময়ই পোশাকে যোগ হচ্ছে নতুন মাত্রা।


পোশাক হচ্ছে সংস্কৃতির ধারক ও বাহক। আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।
একটা দেশের টেক্সটাইল যত উন্নত ঐ দেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা তত উন্নত।
টেক্সটাইল সুতা থেকে তৈরি একটি ফ্যাব্রিক । যদিও এটি বোনা ফ্যাব্রিক নামে পরিচিত, তবে এটি ফাইবার, সুতা, ফ্যাব্রিক এবং এইগুলি থেকে তৈরি অন্য কোনও পণ্য প্রয়োগ করা হয়। এটি পোশাক তৈরির সাথেও যুক্ত।
টেক্সটাইল শিল্পের গুনগতমান ঠিক রাখতে প্রয়োজন সঠিক ধরণা।
টেক্সটাইল হ’ল নমনীয় উপাদান যা প্রাকৃতিক বা কৃত্রিম তন্তুগুলির সমন্বয়ে গঠিত। অপরদিকে ফ্যাশান হাউজ গুলো নির্ভর করে টেক্সটাইলের উপর।টেক্সটাইল ইন্জিনিয়াদের সাহায্যেই একটি ফ্যাশন হাউস সুপ্রতিষ্ঠিত হতে পারে।


এর কারন হলো ডিজাইনের জন্যই ইয়ার্ন পরিবর্তন হবে,ডিজাইনের জন্যই ফ্যাব্রিক এর গঠন পরিবর্তন হবে,ডিজাইনের উপর ভিত্তি করেই কালার পরিবর্তন হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত না একজন টেক্সটাইল থেকে কোনো নির্দেশ আসে প্রোডাশনের জন্য ততক্ষণ পর্য়ন্ত ড্রেস ডিজাইনটি সাবমিট করা হয় , ততক্ষণ পর্যন্ত ইয়ার্ণ বলো, ফ্যাব্রিক বলো, ডাইস বলো- এসব অঙ্গনের মানুষেরা কেউই তাদের কাজ শুরু করতে পারছে না। এর কারণটা হলো ড্রেসটির ফ্যাব্রিকটা কি রকম হবে, কোন ধরনের ফাইবার থাকবে, কোন ধরনের রং ইউজ করা যাবে, কোন প্রিন্ট বেশি টেকশই হবে সেটা কেবল মাত্র একজন টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ার নির্ধারণ করতে পারে ।

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন ফ্যাশান হাউজ। যারা নিজের দেশের ঐতিহ্যকে যেমন ধরে রেখেছে তেমনি বর্হি বিশ্বের সাথে মিলে নিজের দেশকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।
এসব হাউজের মধ্যে ক্যাটস আই, টেক্সমার্ট, একট্যাসী, স্মার্টটেক্স, ট্রেন্ডজ, প্লাস পয়েন্ট, ইয়োলো, লুবনান, রিচম্যান অন্যতম।এসব ফ্যাশান হাউজ গুলো কাপড়ের মান, গুন,ধরন ঠিক রেখে। ক্রেতার পছন্দ অনুযায়ী পোশাক তৈরি করে। এসব ফ্যাশান হাউজ গুলো যেমন ক্রেতার কথা মাথায় রাখে তেমনি টেক্সটাইল শিল্পকে যাতে আরো উন্নত করা যায় তার কথাও ভাবে। হাল ফ্যাশনের কথা মাথায় রেখে হাউজগুলো কাষ্টমারদের জন্য রুচিশীল, আরামদায়ক ও উন্নতমানের কাপড় দিয়ে কর্পোরেট, ক্যাজুয়াল, ষ্টাইলিস্ট পোষাক ডিজাইন করে থাকে।নিজের দেশের ঐতিহ্য কে তুলে ধরার জন্য দেশের অন্যতম ফ্যাশন হাউস গুলো একটি আড়ং। যারা দেশের প্রাচীন ইতিহাসকে তাদের পোশাকের মাধ্যমে তুলে ধরে। টেক্সটাইল শিল্পের কথা মাথায় রেখে তারা পোশাক তৈরি করে। এছাড়া বিভিন্ন উৎসব যেমন পয়লা বৈশাখ, ঈদ, পূজা, বড়দিন, বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস, শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে আলাদা করে নানা ডিজাইনের পোষাক উপস্থাপন করে আসছে।

ফ্যাশান হাউজের মূল লক্ষ্য হলো কাপড়ের মান ঠিক রাখা,গুনাগুন যাচাই করা, ক্রেতার পছন্দ অপছন্দ কে যাচাই করা। অপরদিকে ফ্যাশান হাউজগুলোই বাইরের দেশে নিজের দেশকে প্রদর্শন করে।যার ফলস্রুতিতে ফ্যাশন হাউস গুলো কে এগিয়ে নিয়ে যেতে দক্ষ টেক্সটাইলের সাথে সম্পৃক্ত লোক প্রয়োজন।ফ্যাশন হাউজ গুলো মূলত নির্ভর করে টেক্সটাইলের উপর।

Writer:
Nafiza Nizami
BGMEA University of Fashion & Technology
Department of Taxtile Engineering

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Post

Most Popular

Related Post

Related from author