পলিস্টারে ডিসপার্স প্রিন্টিং নিয়ে এওপিটিবি’র টেকনিক্যাল সেমিনার অনুষ্ঠিত

0
564

আবিদা ফেরদৌসী, নিজস্ব প্রতিবেদক:

গত ২৯ অক্টোবর, শুক্রবার রাত ৮ টায় All Over Printing Technologists of Bangladesh গুরুত্বপূর্ণ একটি টপিক “Disscussion of Printing on 100% Polyester Fabrics” এর উপর বিশেষ সেমিনার আয়োজন করেছে। সেমিনারটি সরাসরি অনলাইন প্লাটফর্ম জুমের মাধ্যমে ফেইসবুক থেকে লাইভ সম্প্রচারিত হয়।

উক্ত সেমিনারে কি নোট স্পিকার হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম সারির একজন স্বনামধন্য প্রিন্টিং এক্সপার্ট ও জনি গ্রুপের উপদেষ্ঠা ইঞ্জিনিয়ার শ্যামল চন্দ্র সাহা।

এছাড়াও সেমিনারে অতিথি হিসেবে ছিলেন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিভিশন, আই ই বি এর সহসভাপতি এবং কলারেন্ট বাংলাদেশের স্বত্বাধিকারী ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আসাদ হোসাইন, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব টেক্সটাইলস(বুটেক্স) এর ওয়েট প্রসেসিং ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের ফ্যাকাল্টি রাশেদা বেগম দিনা, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) এর টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর হেড এবং ফ্যাকাল্টি ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ মাহাবুব হাসান, মাওলানা ভাসানী সাইন্স এন্ড টেকনোলজি ইউনিভার্সিটি এর টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের ফ্যাকাল্টি ড. এম মাহবুবুল বাশার এবং পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ এর প্রিন্সিপাল ইঞ্জিনিয়ার সোলায়মান বারি।

সেশনের চেয়ার হিসেবে ছিলেন এওপিটিবি এর প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার এস এম আব্দুর রহমান এবং মডারেটর হিসেবে ছিলেন সংগঠনের সেক্রেটারি শওকত হোসাইন সোহেল।

সভাপতির শুভেচ্ছা বক্তব্যে ইঞ্জিঃ এস এম আবদুর রহমান উপস্থিত সকলকে স্বাগতম জানিয়ে সেশনটি শুরু করেন। এরপর একে একে সকল অতিথিবৃন্দরা সংক্ষেপে তাদের বক্তব্য রাখেন। তারা প্রত্যেকেই এই সেমিনার যে একটি গুরুত্বপূর্ণ সেমিনার তা প্রকাশ করেছেন।

অতিথিবৃন্দের বক্তব্য শেষে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য উপস্থাপন করেন সেমিনারের কি নোট স্পিকার ইঞ্জিনিয়ার শ্যামল চন্দ্র সাহা। সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি তার বক্তব্যে পলিয়েস্টার ফেব্রিকের উপর প্রিন্টিং নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেন।তিনি বলেন, পলিয়েস্টার অন্যতম একটি টেক্সটাইল ফাইবার যা স্পোর্টসওয়্যার, লেডিস ড্রেস ম্যাটেরিয়াল, টি শার্ট, ব্যানার, ফ্ল্যাগ, টেকনিক্যাল টেক্সটাইলসহ আরো অনেক ক্ষেত্রেই এর ব্যবহার রয়েছে।
বাংলাদেশের পলিয়েস্টার প্রিন্টিং এর ইতিহাস নিয়ে তিনি বলেন, আশির দশকের মাঝামাঝির পর থেকে বাংলাদেশে পলিয়েস্টার প্রিন্টিং শুরু হয়। তবে বর্তমানে আমাদের দেশে পলিয়েস্টার প্রিন্টিং হারিয়ে যাচ্ছে।

পলিয়েস্টার ইয়ার্ন নিয়েও তিনি আলোচনা করেন। এরপর তিনি
নরমাল পলিয়েস্টার অর্থাৎ ১০০% পলিয়েস্টার এর ট্রেডিশনাল প্রিন্টিং এবং ডিজিটাল প্রিন্টিং নিয়ে বিষদভাবে আলোচনা করেন।

অতঃপর প্রশ্নউত্তর পর্ব শেষে অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তি ঘটে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here