Saturday, April 20, 2024
More
    HomeLife Style & Fashionপালা পার্বণে অঙ্গে ভ্রমনের সঙ্গে টেক্সটাইল"

    পালা পার্বণে অঙ্গে ভ্রমনের সঙ্গে টেক্সটাইল”

    যেখানে বাঘের ভয় সেখানেই নাকি রাত হয়,
    আর যেখানেই রাত হয় সেখানেই যদি কাঁৎ হয়, ব্যাপারটা কেমন জমে যায়! প্রকৃত বীরের কিন্তু বাঘের ভয়ে পালিয়ে যায়না। আবার বীরত্ব প্রকাশের জন্য খোলা আকাশের নীচে রাত কাটানো বোকামি ছাড়া কিছু নয়। বাঘের আচমকা হামলা কিংবা হিংস্র প্রাণী থেকে বাঁচতে এবং আরামে রাত কাটাতে দরকার একটি মজবুত তাঁবুর।যা অভিযানপ্রিয় মানুষকে রাখবে সর্বাবস্থায় সুরক্ষিত। অনুকূল বা প্রতিকূল পরিবেশে দিবে স্বস্তির নিঃশ্বাস।

    তাঁবু কিঃ তাঁবু হচ্ছে একটি ক্ষণস্থায়ী আশ্রয়(shelter) যা ক্যানভাস বা ফেব্রিকের শিট দিয়ে একটি খুটির ফ্রেমকে আচ্ছাদিত করে তৈরি করা হয়। যা বাইরের পরিবেশ থেকে আচ্ছাদনের ঘেরা অংশটিকে পৃথক করে বাসযোগ্য করে তুলে।ছোট ছোট তাবুঁগুলো খালি স্ট্যান্ডিং বা মাটির সাথে সংযুক্ত করা হয়। কিন্তু বড় তাঁবুগুলো দড়ি দিয়ে স্ট্যান্ড করা হয়।
    ওল্ড ফরাসি শব্দ ”টেনেট” থেকে ল্যাটিনে “টেন্টা” নেয়া হয়,যা পরবর্তীতে “টেন্ট ” হিসেবে ইংরেজিতে প্রবেশ করে। যার অর্থ ‘প্রসারিত করা”। বাংলায় তাঁবু শব্দটি আরবি ভাষা থেকে এসেছে। যার অর্থ “বস্ত্রাবাস”।

    তাঁবুর ইতিহাসঃ প্রাথমিক দিকে তাঁবুকে ঘর হিসেবে ব্যবহার করলেও কালের বিবর্তনে এটাকে ঘরের বাইরে সাময়িক বিশ্রামের জন্য ব্যবহার করে থাকে।তবে বর্তমান সময়ে অনেক যাযাবর শ্রেণীর মানুষ তাঁবুকে ঘর হিসেবে ব্যবহার করে। প্রাচীনকালে ব্যবহৃত তাঁবুগুলো হালকা এবং উপাদানগুলো সহজলভ্য ছিল।পূর্বে পশুর হাড়, গাছের খুটি তাবুর কাঠামোর জন্য ব্যবহার হত এবং আচ্ছাদনের জন্য ব্যবহার করা হত পশমযুক্ত স্তন্যপায়ী প্রাণীদের চামড়া এবং গাছের পাতা।যা বরফের যুগ থেকে ধারাবাহিক বিবর্তনের মাধ্যমে ফেব্রিকের তাঁবুতে পরিবর্তিত হয়। এই ধরণের তাঁবুর উদাহরণ মোলডোভায় পাওয়া গিয়েছিল।যার স্থাপনাকাল ধারণা করা হয় খ্রীস্টপূর্ব ৪০০০০ অবধি। রাশিয়ান বিমান অভিযানে এই ধরণের সত্তরেরও বেশি তাঁবুর সন্ধান পাওয়া যায়,যা পশুর চামড়া ও হাড় দিয়ে তৈরি।


    তাঁবুর গঠন ও উপাদানঃ
    গঠনগত দিক দিয়ে তাঁবুর দুটি অংশ(নমনীয় ও অনমনীয়) রয়েছে। আবার নমনীয় অংশটি ফ্লোর এবং ফ্লায়ারে বিভক্ত। যা কাপড় দিয়ে তৈরি করা হয়। গঠনের অন্যান্য অংশ হিসেবে থাকে ক্লিপ সিস্টেম,ফ্লায়ার খাটানো,স্টোরেজ স্পেস,ভেন্টিলেশন,ইন্সেক মেশ,পোল সিস্টেম ইত্যাদি।
    কাপড়ে ব্যবহৃত ফাইবার
    ‌পলিয়েস্টার
    ‌নাইলন
    ‌রিপস্টপ নাইলন
    ‌পি ইউ লেয়ার বা সিলিকন
    বর্তমানে বহুল ব্যবহৃত তাঁবুর কাপড় পলিইউরেথিন কোটিং এবং পি ইউ লেয়ার।

    পলি ইউরেথিন কোটিং PU (poly Urethane)-

    পলিয়েস্টার বা নাইলনের কাপড়ের ভেতরের দিকে পাতলা একটা কোটিং করা থাকে পলি ইউরেথিনের। এই কাপড় বৃষ্টিতে কাপড়ের বাহিরের দিক ভিজে থাকে আর শুকাতে বেশ সময় লাগে। ভেজা অবস্থায় প্যাক করে রাখলে খুব তাড়াতাড়ি এই লেয়ার নস্ট হয়ে যায়। এর এই সমস্যা দূর করতে তাঁবুর কাপড়ের বাহিরে ডিউরেবল ওয়াটার রিপেল্যান্ট (DWR) কোটিং ব্যবহার করা হয়। এই কোটিং এর কারনে পানি কচু পাতায় পানির মত গড়ায়ে পড়ে যায়, কাপড়ে ঢুকে না। এই ধরনের কাপড় একটু ঝাড়া দিলেই সব পানি পড়ে যায় আর কিছুক্ষণের ভেতরেই শুকিয়ে যায়, এর ফলে ক্যাম্প শেষে তাড়াতাড়ি প্যাক করা যায়। ফ্লোরে সাধারনত মোটা পি ইউ লেয়ারের কাপড় ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

    নাইলন বা সিলিকনঃ

    উন্নত তাঁবু আজকাল সিল নাইলন বা সিলিকন ফেব্রিক দিয়ে তৈরি হয়। অনেক সময় সিলিকন কোটিং বলা হলেও এটা আসলে কোটিং না, কাপড় তৈরির সময় তরল সিলিকনের ভেতর দিয়ে কাপড় টাকে নেয়া হয়, ফলে তরল সিলিকন কাপড়ের সুতার ভেতরেও ঢুকে যায়, আর দুই পাশে পাতলা একটা লেয়ার তৈরি করে। পুরোটা কাপড়ের মত না হয়ে অনেকটা প্লাস্টিক এর মত চেহারা হয় (পেয়াজের খোসার সাথে মিল আছে কিছুটা)। প্রক্রিয়াটা অনেকটা গ্লাস ফাইবার এর মত। এই ম্যাটেরিয়াল যেমন ওজনে হালকা, তেমনি টিকেও অনেকদিন। আর ওয়াটার প্রুফ রেটিং ও অনেক বেশী, প্রায় ৩০০০-৪০০০মিমি হয়ে থাকে। এছাড়াও কাপড়ের সেলাই গুলির ভিতরের দিকে পাতলা একটা প্লাস্টিক বা রাবারের টেপ হিট ও প্রেশার দিয়ে লাগানো থাকবে যেন সেলাই দিয়ে পানি না ঢুকে।তবে এই ধরণের টেন্টে গরমের দিনে থাকতে কষ্ট হবে, কারন সেটা ঠাণ্ডার কথা ভেবে তৈরি।


    কিছু কিছু ব্যাপার তাঁবুতে আপনার থাকাকে আরামদায়ক করবে যেমন ভেতরের পকেট, মাথার উপর লাইট লাগানোর লুপ, সামনে ও পেছনে ভেস্টিবুল বা স্টোরেজ স্পেস, নেট এর দরজা, হেড স্পেস।ভালো মেটেরিয়ালের উপর নির্ভর করবে তাবুর ওজন, ওজন বেশী মানেই ভালো ভাবার কোনই কারন নাই। কিছু কিছু তাবুতে শুধু ফ্লায়ার খাটানোর ব্যবস্থা থাকে, ভালো আবহাওয়া হলে তখন বেশ আরাম করে থাকা যায়।


    তাঁবুর প্রকারভেদঃ অনেকে তাঁবুর মান বিবেচনা করে দাম দিয়ে।কিন্তু এক্ষেত্রে তাবুর দাম এবং মানে ভিন্নতা রয়েছে।যেমনঃ চৈত্র‍্যের রোদে দামী কোট কিংবা শীতে কটনের পাতলা শার্ট।অর্থাৎ তাঁবুর মান এবং ধরণ নির্ভর করে সিজন বা ঋতুর উপর।

    সিজনভেদে তাঁবুর ধরণ-
    ★সিজন-১ঃ ড্রাই বা সানি ওয়েদার এর জন্যে।
    ★সিজন-২ঃ হালকা বৃষ্টি ও হালকা বাতাস সহ্য করতে পারে।
    ★সিজন-৩ঃ মূলত বৃষ্টি ও বাতাস, সাথে হালকা তুষার সহ্য করতে পারে।
    ★ সিজন-৪ঃ ভারী বৃষ্টি ও ভারী তুষারপাত, সাথে জোর বাতাস সহ্য করতে পারে।
    ★সিজন-৫ঃ যা এক্সট্রিম কন্ডিশনের টেন্ট হয়, যেগুলি অনেক বেশী তুষারপাত ও ঝড় সহ্য করতে পারে। কিন্তু এইগুলি সাধারনত এক্সট্রিম কন্ডিশনে যেমন আর্কটিক বা পাহাড়ের অনেক উপরে ব্যবহারের জন্যে।
    সিজন১ এবং ২ঃ
    পাতলা এক লেয়ারের তৈরি হবে, পোল ৬-৭ মিমি ফাইবারের হবে। সেলাই এর ভেতরের দিকে কোন সিল করা থাকবে না। ছোট্ট করে ভেন্টিলেশন এর ব্যবস্থা থাকতে পারে।


    সিজন-৩ঃ
    সাধারনত দুই লেয়ারের হবে, একটা টেন্ট বডি থাকবে, আরেকটা ফ্লায়ার থাকবে। পোল গুলি বেশ মোটা (৮-৯ মিমি) ফাইবারের হবে। ফ্লায়ার ও ফ্লোর এর কাপড় ওয়াটার প্রুফ হবে ১৫০০- ৩০০০মিমি রেটিং এর, সেলাইগুলি হিট বা প্রেশার সিম সিল করা থাকবে যেন পানি সেলাইয়ের গোড়া দিয়ে না ঢুকতে পারে। টেন্ট বডিতে পর্যাপ্ত ভেন্টিলেশনের ব্যবস্থা থাকবে বা মেশ/নেট থাকবে যেন ভেতরে কন্ডেন্সেশন বা ঘেমে যাওয়া কম হয়। গাই রোপ থাকবে।


    সিজন ৪ এবং ৫ঃ
    সিজনের-৩ এর মতই, কিন্তু পোল অনেক মজবুত হবে, ফাইবার এর বদলে এলয়ের পোল থাকবে, কিছু ক্ষেত্রে সাধারণ ২ টা পোলের বদলে বেশী পোল থাকবে বাতাস ও তুষারের ভার সহ্য করার জন্যে। ফ্লায়ার মাটি পর্যন্ত থাকবে, ফ্লোর ও ফ্লায়ার ৩০০০-৪০০০মিমি ওয়াটার প্রুফ রেটিং এর হবে। ভেন্টিলেশন ফ্ল্যাপ নাও থাকতে পারে, থাকলেও বন্ধ করার ব্যাবস্থা থাকবে। গাই রোপ থাকবে। কিছু কিছু ৩/৪/৫ সিজন তাবু ওজন কমানোর জন্যে এক লেয়ারের হয়ে থাকে, তবে সেগুলি ব্রিদেবল ওয়াটার প্রুফ কাপড়ের তৈরি হওয়ায় ব্যয়বহুল।
    ★★তাঁবুর ওয়াটার প্রুফ এর মাত্রা বুঝানো হয় কাপড়ের হাইড্রস্ট্যাটিক হেড প্রেশার রেটিং দিয়ে। এইটার মানে কাপড়টা কতটুকু পানির প্রেশার নিতে পারে লিক করার আগ পর্যন্ত, এই রেটিং যত বেশী হবে কাপড় তত বেশী ভারী বৃষ্টি ও ঝড়ো বৃষ্টি সহ্য করতে পারবে।


    তাঁবুর প্রয়োজনীয়তাঃ
    তাঁবুর রেইন গিয়ার এবং একটি ভাল লেয়ারিং সিস্টেম থাকে যা দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।যা সক্রিয়ভাবে উষ্ণ হলে দেহ আর্দ্র এবং শীতল হলে তাপ উৎপন্ন করে স্বাভাবিক অবস্থা বজায় রাখে।
    তাঁবু জলরোধী হওয়ায় বৃষ্টির ছাঁট ভেতরে প্রবেশ করেনা।তাঁবুতে ব্যবহৃত হয় মাইক্রোক্লিমেট যেখানে আরামে বিশ্রাম করতে পারেন।ঘুমাতে এবং হিংস্র প্রাণী থেকে নিরাপদ থাকতে পারেন।
    সর্বোপরি প্রকৃতির কোলে মাথা রাখতে তাঁবুর প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য। প্রাত্যহিক জীবন কিংবা পৃথিবী বিচরণ সবক্ষেত্রেই যেন রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে গেছে টেক্সটাইলের বিস্তৃতি।

    তথ্যসূত্রঃউইকিপিডিয়া, পীক সিক্সটিনাইন (peak69)

    Writer information

    Alia Yasmin
    Department of Yarn Engineering
    Dr M A Wazed miah textile Engineering
    College.
    Team member-TES(DWMTEC)

    RELATED ARTICLES

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    - Advertisment -

    Most Popular

    Recent Comments