“Swiss Textile Machinery Association এর আশি বছরের পথ চলা”

0
448

আজকে আপনাদের সবাইকে Swiss Textile Machinery Association এর গল্প বলবো। যখন একটি সংস্থা তার ৮০ তম বছর বয়সে পৌছায়, অবশ্যই এর বিশাল লম্বা পথ চলার ক্ষেত্রে, এটিকে অনেক বাঁধা আর সংকটের মধ্যে দিয়েই যেতে হয়েছে। আর এই সংকট আর বাঁধা মোকাবিলার কারনেই ভবিষ্যতে যে কোনো বিপদেই নিজেকে রক্ষা করতে পারবে। শুরুর দিকের ইতিহাসের দিকে তাকালে বর্তমান সময়ে উন্নতি করার আশাই কোনো কোম্পানি বা সংস্থা কে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করে। আর একই সাথে বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ চ্যালেন্জগুলোর সমাধান, কোম্পানিকে সফলতা এনে দেয়। অতিতের ধারণা বা অভিজ্ঞতা গুলো ভবিষ্যতের জন্য অনেকটা আশা প্রদান করে।

Swiss Textile Machinery Association, যাত্রা শুরু করে এক রকম সংকট পরিস্থিতির মধ্যেই। ১৯৪০ সালে, যখন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর পর থেকেই, যুদ্ধের দামামা সুইজারল্যান্ডের স্থানীয় বা নিজস্ব মেশিনারি শিল্পে প্রভাব ফেলতে শুরু করেছিল। তখনকার সুইজারল্যান্ডে একটি প্রধান সমস্যা ছিল শিল্প নৈপুণ্য বা দক্ষ শ্রমিকের অভাব এবং অন্য আরেকটি সমস্যা ছিল কাঁচা মালের ঘাটতি। যার সিংহভাগই অস্ত্র উৎপাদনে তৎকালীন সময়ে ব্যবহার করা হয়েছিল।

সুইজারল্যান্ড এর তখনকার শিল্প নেতারা, যারা টেক্সটাইল মেশিনারি শিল্প পরিচালনা করতো, তারা সুইজারল্যান্ড এর ভবিষ্যৎ মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়লো। কেননা সেই সময়কার ইন্ডাস্ট্রি পরিচালনা করার জন্য কাঁচা ধাতু এবং উচ্চ মানের ইস্পাতের অনেক দরকার ছিল। কিন্তু যুদ্ধের কারণে বহির্বিশ্ব থেকে তা আমদানি করা সম্ভব হচ্ছিল না। এই পরিস্থিতিটি দিনে দিনে মারাত্মক হয়ে উঠছিল এবং টেক্সটাইল মেশিনারি শিল্পের অনেক গুলো সংস্থা সুইজারল্যান্ডের সরকারকে অনুরোধ করতে চেয়েছিল যে উৎপাদন ক্ষমতা বজায় রাখতে প্রয়োজনীয় বা দরকারি কাচামাল সংরক্ষণ করতে হবে।

তৎকালীন সুইজারল্যান্ড এর ২২ টি কোম্পানির নেতৃত্বাধীন নেতারা “একতাই বল ” এই নীতি মেনে চলে একটি শক্ত কোরাম গঠন করে। যা পরবর্তীতে, Swiss Textile Machinery Association পরিণত হয়েছে।

Rüti, Sulzer, Rieter এবং Saurer এর মতো সুপরিচিত ব্র্যান্ড সহ আধুনিক সুইস টেক্সটাইল মেশিনারি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন রকমের ধাতু যেমন: লোহার তীব্র সংকটের কারণে প্রথম থেকেই মেশিন তৈরি করতে পারছিল না। তবে এই সমস্যাটি সমাধান করাও বেশ চ্যালেঞ্জিং একটি ব্যাপার ছিল।

ইতিহাসের পাতায় যদি আমরা দেখি, ১৮০৬ সালের সময় সুইজারল্যান্ড এমনই একটি দেশ ছিল যেখানে বস্ত্রশিল্প কে অনেক গুরুত্বের চোখে দেখা হতো। কিন্তু ভাগ্যের এমন নির্মম পরিহাস যে, ঠিক সেইসময়ে সুইজারল্যান্ড এর উপর নেপোলিয়ন কর্তৃক উপমহাদেশীয় অবরোধ আরোপিত হয়। যা তৎকালীন সময়ে সুইজারল্যান্ডের শিল্পায়নের খুবই বাজে ভাবে প্রভাব বিস্তার করেছিল। শিল্প পরিচালনার জন্য সেই সময় সুইজারল্যান্ডের টেক্সটাইল পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো, গ্রেট বৃটেনের মেশিন গুলো কে প্রাধান্য দিতে থাকে। যদিও কিছুদিন পরে গ্রেট ব্রিটেন উপমহাদেশীয় অবরোধের জন্য সুইজারল্যান্ডকে টেক্সটাইল মেনুফেকচারিং মেশিন সাপ্লাই দেওয়া বন্ধ করে দেয়।

আর ঠিক তখনই সুইজারল্যান্ড টেক্সটাইল কোম্পানিগুলো নিজেদের জন্য নিজস্ব মেশিন ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের তাগাদা অনুভব করে। আর সেই সময় থেকেই সুইজারল্যান্ড এর কিছু ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা নিজস্ব প্রযুক্তিতে টেক্সটাইল মেনুফেকচারিং মেশিন তৈরি করা শুরু করে দেয়। তাদের বেগ পেতে বেশি দেরি হয়নি। অল্প কিছুদিনের মধ্যেই তারা ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রডাকশনে যেতে পেরেছিল। নিজেদের চাহিদা মিটিয়েও বহির্বিশ্বে টেক্সটাইল মেনুফেকচারিং মেশিন সাপ্লাই দিয়েছিল। আর এই ভাবেই সুইজারল্যান্ডের টেক্সটাইল মেশিনারি ইন্ডাস্ট্রির জন্ম হয়।

বর্তমান বৈশ্বিক অবস্থা বিবেচনা করলে দেখা যায় একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানকে দাড় করানো যেখানে অনেক কষ্টসাধ্য। সেখানে কে ধারনা করতে পেরেছিল যে, ৮০ বছর ধরে ধীরে ধীরে গড়ে তোলা সুইস টেক্সটাইল মেশিনারি এসোসিয়েশন আজকে এই পর্যন্ত আসতে পারবে !! যাদের ৮০ তম বার্ষিকীতে এসে সাম্প্রতিক শিল্প ইতিহাসের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের ফলে করোনা মহামারী সংকট দেখা দেবে? ”এই সংকট টেক্সটাইল শিল্পকে খুবই খারাপ ভাবে আঘাত করবে ?” সুইস টেক্সটাইল মেশিনারি এসোসিয়েশনের সভাপতি আর্নেস্তো মুরার বলেছেন, তার মতে এই সংকট টেক্সটাইল শিল্পের উপর যে প্রভাব বিস্তার করবে তা এই বছরের শেষের দিকে হয়তোবা স্পষ্ট ভাবে ফুটে উঠবে।

বর্তমান সময়ের বা আজকের যুগের প্রয়োজনীয় দক্ষতা গুলো আগের মতোই রয়েছে। কোন কিছুকে কাজের জন্য উপযোগী এবং নমনীয় করে তুলতে যেই যোগ্যতা সমূহ দরকার। প্রাচীন ইতিহাস থেকে আমরা যে অভিজ্ঞতা পেয়ে থাকি সেই অভিজ্ঞতা থেকে বর্তমানে সুইস টেক্সটাইল মেশিন উৎপাদকদের জন্য কিছু আশাবাদের ভিত্তি জোগায়। আর্নেস্তো মুরার বলেছেন যে, আমি সৃষ্টিশীল সমাধান এবং নিজের বিশ্বাসের উপর ভরসা করছি যে সুইস টেক্সটাইল মেশিনারির কর্মী বা সদস্যরা সংকট থেকে আগের চেয়ে শক্তিশালী হয়ে উঠবে। আমি এখনো আশা নিয়ে বলতে পারি যে, Swiss Textile Machinery অবশ্যই সফল হবেই এবং করোনা-পরবর্তী সময় গুলোতেও আমরা আমাদের লিডিং পজিশন ধরে রাখতে সমর্থ হবো এবং আমরা সেই চিরন্তন সত্য আবারো প্রমান করবো যে, “একতাই বল”।

🧿 Writer information:

Name: Md Khairul Islam
Institute: Primeasia University
Batch: 201
Campus Core Team Member (201)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here