টেক্সটাইল টেক অ্যাসোসিয়েশনের আগত ইভেন্ট জানুয়ারি ২০২৩ “ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ” এর কর্মসূচি বিষয়ক আলোচনা সভা

0
108

 ২০২৩ এর জানুয়ারির ২য় সপ্তাহে আয়োজিত হতে যাচ্ছে টেক্সটাইল টেক অ্যাসোসিয়েশন এর পক্ষ থেকে আসন্ন একটি বিশেষ অনুষ্ঠান কর্মসূচী । সেই অনুষ্ঠান কর্মসূচি কে কেন্দ্র করে গত ২৩, অক্টোবর ২০২২ একটি প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয় গুলশান-২ এর হ্যান্ডি রেস্টুরেন্ট এ। যেখানে উপস্থিত ছিলেন উক্ত সংগটনটির প্রতিষ্ঠাতা সাবরিনা শারমিন এবং তার সাথে আরো দুজন কোর টীম লিডার সেই সাথে সাংবাদিক সহ বিশেষ ব্যাক্তিবর্গ। আলোচনায় উল্লেখযোগ্য আলোচ্য বিষয়গুলোর মধ্যে গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে বাংলাদেশের তৈরিকৃত বিভিন্ন প্যাটার্ন , ডিজাইন এর তৈরিকৃত পোশাক ও ফেব্রিক এর ব্র্যান্ডিং বিষয়ে ” Made in Bangladesh” লেভেলিং

এর মাধ্যমে অন্য দেশের থেকে নিজ দেশের পোশাক শিল্পে বিশ্ব দরবারে নিজেদের অবস্থান এগীয়ে রাখতে হবে এ বিষয়ে আরো গুরুত্ব আরোপ করতে হবে বলে জানান সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাবরিনা শারমিন। মূলত একটি ফ্যাশন শো প্রদর্শনীর মাধ্যমে বাংলাদেশের টেক্সটাইল এবং আরএমজি শিল্পকে ব্র্যান্ড হিসেবে যথাযথ বিশ্ব দরবারে উপস্থাপন করা ও ডিজাইন শিল্পের শক্তির পাশাপাশি স্থানীয় উপকরণগুলিকে হাইলাইট করা। এই ইভেন্টে আয়োজিত ফ্যাশন শো তে, যেখানে ডিজাইনের অগ্রগতি ,যেমন ওয়েস্টার্ন প্যাটার্ন প্রদর্শনের পাশাপাশি স্থানীয় কাপড়ের প্রদর্শনী হবে। ফ্যাশন শোতে দেশীয় উপকরণের মৌলিকতা ও নকশা তুলে ধরা হবে। TTA ( টেক্সটাইল টেক অ্যাসোসিয়েশন) তাদের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে শিল্পের ভবিষ্যত দিকনির্দেশনার দিকেও মনোনিবেশ করছে। ফ্যাশন ডিজাইনাররা স্থানীয় কাপড় (নিজ দেশে তৈরীকৃত) ব্যবহার করে তাদের কাজ প্রদর্শন করবে বিভিন্ন প্যাটার্ন অনুযায়ী। এছাড়াও লোকাল যেসব ফ্যাশন ডিজাইনাররা রয়েছে তাদের কাজের প্রতি মনোবল জোগাতে তারা মাধ্যম হিসেবে কাজ করবে । অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে যারা ইতোমধ্যে উক্ত ফিল্ড এ রয়েছে তাদের সাথে বিভিন্ন টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি এর মধ্যে একটি চেইন অব কমান্ড তৈরীতে তারা সহায়ক ভূমিকা রাখবে নিজেদের অবস্থান থেকে যতটুকু সম্ভব। 

আলোচনা সভায় আরেকটি বিশেষ দিক উঠে এসেছে যেখানে নারী শিক্ষার্থী ( টেক্সটাইল অর্ধায়নরত/গ্রাজুয়েটেট) তাদেরকে সাথে নিয়ে প্রগতিশীল চিন্তাধারা কে আরো উন্মোচন করে একে অপরের সহায়তায় বর্তমান টেক্সটাইল সেক্টর কে আরও সম্মৃদ্ধি কিভাবে করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়। এক্ষেত্রে নারীদের কাজের ক্ষেত্র তৈরির মাধ্যমে তাদের মেধাকে কাজে লাগিয়ে সম্পূর্ণ বৈষম্য দূর করে নারী পুরুষ উভয়েই একে ওপরের পরিপূরক হয়ে কাজের ক্ষেত্র কে আরো প্রসারিত করতে বলা হচ্ছে।।

শিবলী সাদিকুর রহমান

নিজস্ব প্রতিবেদক 

(টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সোসাইটি)

ক্যাম্পাস টীম মেম্বার

(প্রাইমএশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here