বর্তমান পরিস্থিতিতে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এ ডিপ্লোমা করা কতটুকু যুক্তিসঙ্গত!

0
689

টেক্সটাইলে ডিপ্লোমা পাশ করা এক ভাইকে চিনি, তিনি ডিপ্লোমা পাশ করার পর এক দুই করে করে ছয়- ছয়টি সৌর বছর পার হয়েছে, কিন্তু তিনি এখনো বেকার। ওনার ব্যাচের অন্যান্যরা দেশ সেরা ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে ভালো ভালো পদ দখল করে আছে।
কথা প্রসঙ্গে একবার তিনি বলেছিলেন, কারখানায় রাত কাটানো আর নন মেট্রিক কাউকে স্যার সম্বোধন করতে আপত্তি থাকার অপরাধেই তিনি এখনো বেকার।

অন্য একজনকে চিনি, চার বছরের ডিপ্লোমা শেষ করতে যার সাত বছর লেগেছিলো। ওনার অভিযোগ টেক্সটাইল সেক্টরে ওনার কোনো মামা-চাচা নেই তাই তিনি এখনো বেকার।

আরেকজনকে চিনি, তিনি টেক্সটাইলে ডিপ্লোমা করে উচ্চ শিক্ষা নিয়ে এখন দেশের নামকরা একটা প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ও ডিপার্টমেন্ট হেড।

আমায় যদি কেউ প্রশ্ন করে, ডিপ্লোমায় ভর্তি হওয়ার সিদ্ধান্তটা তোমার ভুল ছিলো নাকি ঠিক ছিলো?
এমন প্রশ্নের জবাবে আমি সর্বপ্রথম বলবো, আলহামদুলিল্লাহ! আমি আমার পজিশনে সবসময় সন্তুষ্ট। কেননা আল্লাহ যা করেন ভালোর জন্যই করেন।

টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রির সম্পর্কে আমার বাস্তব কোনো অভিজ্ঞতা নেই। যতটুকু জানি সবই সিনিয়র ভাই আর শিক্ষকদের কাছ থেকে শোনা।

আমি যখন ডিপ্লোমা ভর্তি হই তখন অত শতো বুঝতাম না। তখন যদি, বুটেক্স সহ দেশের অন্যান্য পাবলিক টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ সম্পর্কে ধারণা থাকতো! তাহলে কখনো ডিপ্লোমায় ভর্তি হতাম না।

তবে একটা আফসোস থেকেই যায়। আমার অনেক পরিচিত ব্যাচমেট বুটেক্সসহ পাবলিক ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলোতে চান্স পেয়েছে। যাদের চেয়ে আমার এস.এস.সি রেজাল্ট ভালো ছিলো।

তোমরা যারা বিজ্ঞান বিভাগ থেকে 4.75+ পেয়ে এস এস সি পাশ করেছো, তোমার আত্ম বিশ্বাস আছে তুমি চেষ্টা করলে পারবে। তবে তুমি ডিপ্লোমা ভর্তি হওয়াটা হবে নিতান্তই বোকামী। তোমার জন্য বুটেক্স সহ বুটেক্স অধিভুক্ত ৬ টি পাবলিক ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ অপেক্ষমান। শুধু প্রয়োজন তোমার প্রবল ইচ্ছা আর সেখানে নিজের জন্য একটা সিট দখল করে নেয়ার জন্য কঠোর পরিশ্রম।

এছাড়াও দেশে বহু প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি আছে। যেগুলোতে বি.এস.সি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সুযোগ রয়েছে। বাবার সামর্থ্য থাকলে সেগুলোর জন্য ও প্রস্তুতি নিতে পারো।

আর যাদের বাবার সামর্থ্য নেই, কনফিডেন্স লেভেলটাও একটু কম, মোদ্দা কথা রিস্ক নিতে চাচ্ছো না। তবে তোমাকে বলবো, ডিপ্লোমায় ভর্তি হয়ে যাও। ডুয়েট যেহেতু ডিপ্লোমাধারীদের সোনার হরিণ বলা হয়। ডুয়েট নামক সোনার হরিণ আর বিটেকের নাগাল না পেলেও চাকরির পাশাপাশি প্রাইভেটে পড়ার অপশনটা তোমার হাতে থাকবে।

বি কেয়ারফুল ব্রু, ডিপ্লোমায় ভর্তি হয়ে পরে যেন আফসোস করতে না হয়।

ডিপ্লোমা করে বি.এস.সি করতে হলে এসএসসি পাশ করার পর মোট সময় লাগবে, (৪+৪)= ৮ বছর।

ডিপ্লোমাধারীদের বি.এস.সির জন্য রয়েছে সরকারি তিনটি প্রতিষ্ঠান,
১. ঢাকা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর
২. বঙ্গবন্ধু টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, টাঙ্গাইল
৩. বাংলাদেশ তাঁত শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট, নরসিংদী (সেমিষ্টার ফি প্রযোজ্য)

বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এইচএসসি পাশ করে বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে এসএসসির পর মোট সময় লাগে (২+৪)= ৬ বছর।

বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সুযোগ রয়েছে নিম্নোক্ত সরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহেঃ
১. বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।
২. খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা।
৩. মাওলানা ভাষানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, টাঙ্গাইল।
৪. যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর।
৫. পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, পাবনা।
৬.চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ।
৭. শহীদ আব্দুর রব সেরেবানিয়াত টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, বরিশাল
৮. নোয়াখালী টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ
৯. শেখ কামাল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, ঝিনাইদহ
১০. ড.ওয়াজেদ মিয়া টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, রংপুর।

এবার তোমার সিদ্ধান্ত তুমি নাও কোন পথে হাঁটবে।

লিখেছেনঃ
Mahfuj Hasan Shakib
Diploma in Textile Engineering
BHETI- Narshingdi.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here