Home Business Fashion House Review ( বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ফ্যাশন ব্র‍্যান্ডসমূহ, পর্ব: ০১ ) - Adidas

( বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ফ্যাশন ব্র‍্যান্ডসমূহ, পর্ব: ০১ ) – Adidas

adidas, পূর্ণনাম Adidas AG, জার্মানের একটি অ্যাথলেটিক সুজ, অ্যাপারেল এবং স্পোর্টিং সামগ্রী প্রস্তুতকারক ব্র‍্যান্ড। বর্তমানে স্পোর্টসওয়্যার প্রস্তুতকারকদের মধ্যে এটি ইউরোপের বৃহত্তম এবং বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ব্র‍্যান্ড। তাই adidas ব্র‍্যান্ড চেনেন না বা নাম শোনেনি এমন মানুষ খুজে পাওয়া দুর্লভ বটে।

আজকে এই চিরপরিচিত ব্র‍্যান্ডের কিছু ইতিহাস এবং তথ্য আপনাদের সামনে তুলে ধরব।

প্রতিষ্ঠানের নাম adidas এসেছে এর প্রতিষ্ঠাতা Adolf Dassler এর নামের সংক্ষেপণ থেকে। Dassler পরিবারের দুই ভাই Adolf এবং Rudolf এর যৌথ ব্র‍্যান্ড Dassler Brothers Shoe Factory জুতা প্রোডাকশনের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে ১৯২৪ সালের জুলাই মাস থেকে। ১৯৩৬ সালের বার্লিন অলিম্পিকসে আমেরিকান ট্র্যাক-এবং-ফিল্ড তারকা Jesse Owens যে জুতাজোড়া পড়ে মেডেলজয়ী পারফরম্যান্স করেছিলেন তা ছিল Adolf Dassler এর পক্ষ থেকে দেওয়া উপহার। ফলস্বরূপ বিশ্বজুড়ে Dassler Brothers ব্র্যান্ড পরিচিত হয়ে উঠে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর যখন Adolf এবং Rudolf তাদের Dassler Brothers Shoe Factory টি পুনর্নির্মাণের চেষ্টা করছিলেন, তখন ব্যক্তিগত বিভিন্ন দ্বন্দ্বের কারনে দুই ভাইয়ের সম্পর্ক ক্রমশ খারাপ হতে থাকে। অবশেষে ১৯৪৮ সালে তাদের ব্র‍্যান্ডটি বিভক্ত হয়ে যায়।

১৯৪৯ সালের ১৮ই আগষ্ট Adolf প্রতিষ্ঠা করেন adidas এবং Rudolf ১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠা করেন অপর একটি জনপ্রিয় ব্র্যান্ড Puma।

অবাক হয়ে গেলেন? শীর্ষের তালিকায় adidas এর পরেই অবস্থান করা তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্র‍্যান্ড Puma যে adidas এর প্রতিষ্ঠাতারই ভাইয়ের তা হয়তো অনেকেই জানতেন না।

এবার আসি adidas এর বিস্তার লাভের গল্পে। ১৯৫০ এর দশকে ব্র‍্যান্ডটি বিস্তার লাভ করে কারন অ্যাসোসিয়েশন ফুটবলাররা ওজনে হালকা এবং স্ক্রু-ইন ক্লিট বৈশিষ্ট্যযুক্ত adidas এর জুতা ব্যবহার করা শুরু করেন। ক্রমশ বিকাশ লাভের পর ১৯৬৭ সাল থেকে ব্র‍্যান্ডটি পোশাক উৎপাদন শুরু করে।
১৯৮০ সালে Adolf এর মৃত্যুর পর অনেক উত্থান-পতন এবং মালিকানা বদলের মধ্য দিয়ে ব্র‍্যান্ডটি তার বর্তমান অবস্থায় আসতে পেরেছে।

Adidas ব্র‍্যান্ডের গঠনগত কিছু তথ্য:

বর্তমানে adidas গ্রুপের চেয়ারম্যান হিসেবে কর্মরত আছেন Igor Landau এবং CEO হিসেবে আছেন Kasper Rørsted। জার্মানির হার্জোগেনৌরাচে ব্র্যান্ডটির হেডকোয়ার্টার অবস্থিত। এছাড়া ৫৫ টি দেশে প্রায় ৮০০টি ফ্যাক্টরিতে adidas এর পণ্য উৎপাদন করা হয় এবং বিশ্যব্যাপী অবস্থিত ১১৯০ টি অফিসিয়াল ব্র‍্যান্ড স্টোরের মাধ্যমে তা বিপণন করা হয়। এইসব আউটলেট, প্রোডাকশন প্ল্যান্টে সব মিলিয়ে প্রায় ৫৭,০০০ জন কর্মী এই ব্যান্ডটির সাথে যুক্ত রয়েছে। সাবসিডিয়ারি হিসেবে ব্র্যান্ডটির সাথে যুক্ত আছে Reebok, Runtastic, Matix এর মতো জনপ্রিয় ব্র্যান্ড। স্পোর্টস জগতে ব্যাপক চাহিদা এবং বাজারমূল্য বিবেচনায় adidas অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ব্র্যান্ড। ২০১৮ সালে ব্র্যান্ডটির বার্ষিক আয় ছিল ২১.৯ বিলিয়ন ইউরো যাতে লাভের পরিমান ছিল ১.৭ বিলিয়ন ইউরো। ব্র‍্যান্ডটির প্রোডাক্ট লাইনআপের ভেতর রয়েছে তৈরি পোশাক, ফুটওয়্যার, স্পোর্টসওয়্যার, স্পোর্টস ইকুইপমেন্ট, টয়লেট্রিজ ইত্যাদি।

এবার জেনে নেওয়া যাক adidas ব্র‍্যান্ড সম্পর্কে কিছু মজার তথ্যঃ 

  • adidas ব্র‍্যান্ডের নামের সবগুলো অক্ষর সবসময় ছোট হাতের অক্ষরে লিখা হয়। এর দ্বারা adidas যে একটি “ক্যাজুয়াল” স্পোর্টসওয়্যার তৈরির ব্র‍্যান্ড তার প্রতি ইঙ্গিত করা হয়।
  • adidas ব্র‍্যান্ডের বেশ কয়েকটি লোগো আছে। কি অর্থ বহন করে এই লোগোগুলি?
    তিনটি স্ট্রাইপ মার্ককে adidas এর আইডেন্টিটিও বলা চলে। এই স্ট্রাইপগুলো ব্র‍্যান্ডটির প্রোডাক্টলাইনকে চিত্রায়িত করে।  adidas এর যে ভিন্ন ভিন্ন লোগো রয়েছে তার সবকটি তেই এই স্ট্রাইপ মার্কগুলো দেখা যায়।

    প্রথমত পর্বত আকৃতির লোগোটি সবচেয়ে বেশি দেখা যায়, তা দ্বারা যেকোনো বাধা টপকে এগিয়ে যাওয়াকে চিত্রায়িত করা হয়। এছাড়া ব্র‍্যান্ডটির ট্রিফয়েলের উপর স্ট্রাইপ লোগোতে স্ট্রাইপ মার্ক দ্বারা ভ্যারাইটি এবং ট্রিফয়েলের তিন পাতা দ্বারা বিশ্বের তিন প্রান্ত নর্থ আমেরিকা, ইউরোপ এবং এশিয়াকে রিপ্রেজেন্ট করা হয়।সবশেষে তাদের গোল লোগোটি দ্বারা গ্লোব এবং যুগের পরিবর্তনের সাথে খাপ খেয়ে চলাকে বোঝানো হয়।
  • বর্তমান সময়ে ফিটনেস ট্র‍্যাকিং এর জন্য স্মার্টফোন অ্যাপ, স্মার্টব্যান্ড কতো কিছুই না উদ্ভাবিত হয়েছে। কিন্তু কতো ধাপ দৌড়ানো বা হাটা হয়েছে তা গণনা করতে সক্ষম স্মার্ট সুজ adidas তৈরি করেছিল সেই ১৯৮৪ সালেই!
  • Shower shoes আবিষ্কার করেছে adidas!
  • ২০২০ সালে ব্র‍্যান্ডটি উপকুল অঞ্চল এবং বিভিন্ন সমুদ্র সৈকত থেকে সংগ্রহ করা প্লাস্টিক ওয়েস্ট রিসাইকেল করে প্রায় ১৫ মিলিয়নেরও বেশি জোড়া জুতা তৈরি করেছে।
  • Better Cotton Initiative নামক বিশ্বের সর্ববৃহৎ সাস্টেইনেবল কটন প্রোডাকশন বিষয়ক সংস্থার ফাউন্ডিং মেম্বারদের একটি হলো adidas ব্র‍্যান্ড।

adidas এর বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার লিংক:

Website- https://www.adidas-group.com
Twitter- https://www.twitter.com/adidas
Facebook- http://www.facebook.com/adidas
Instagram- https://www.instagram.com/adidas

Reference-

www.adidas-group.com
www.wikipedia.org
www.britannica.com
www.just-style.com

Writer Information-

Fahim Zannat Minar
Textile Engineering (3rd batch)
Jashore University of Science and Technology
Email- [email protected]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Post

Most Popular

Related Post

Related from author