Home Life Style & Fashion ভবিষ্যতের ফ্যাশন (A-POC টেক্সটাইল)

ভবিষ্যতের ফ্যাশন (A-POC টেক্সটাইল)

প্রথমেই একটা বিষয় কল্পনা করে নেওয়া যাক। ধরুন, আমার কাছে একটা মাত্র টিউব বা সিলিন্ডার আকৃতির একটি ফ্যাব্রিক আছে। একটা কাপড় ভাঁজ করে তার দুই প্রান্ত সেলাই করে দিলে বা আটকিয়ে দিলে যেমন একটা ফ্যাব্রিক হবে, সেরকমই একটা ফ্যাব্রিক নিয়ে কল্পনা করছি। এরপর ফ্যাব্রিকটার Neckline, Sleeve ও প্রয়োজনীয় অংশে আমি আমার নিজের মত করে শুধু কাঁচি দিয়ে কেটে একটা পূর্ণাঙ্গ পোশাক বানিয়ে ফেললাম! কোন বাড়তি খরচ বা স্কিল ছাড়া! ব্যাপারটা সেকেলে ভাষায় বলতে গেলে খুবই চমকপ্রদ আর একালের ভাষায় বলতে গেলে ‘Awesome’! আক্ষরিক অর্থেও বিষয়টা আসলে সেরকমই।

হ্যাঁ, এমনই একটি টেক্সটাইলের উদ্ভাবন করেছিলেন জাপানিজ ফ্যাশন ডিজাইনার Issey Miyake। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার Dai Fujiwara এর সহযোগিতায় ১৯৯৭ তৈরি করেন তাঁর বিখ্যাত A-POC Queen Textile যা আজ A-POC নামেই পরিচিত। A-poc এর পূর্ণাঙ্গ রূপ ‘A piece of cloth’ অর্থাৎ একটিমাত্র কাপড়। যেমনটা শুরুতেই ব্যাখ্যা করা হয়েছে, কাস্টমার ফ্যাব্রিকটার সেলাই বা seam বরাবর প্রয়োজনীয় স্থানে কেটে, ভালভবে বলতে গেলে, hole বানিয়ে সম্পূর্ণ পোশাকটি তৈরি করে পরিধান করতে পারবে।

এধরনের টেক্সটাইল বানানোর ক্ষেত্রে মিয়াকি’র ভিশন ছিল – পোশাক তৈরিতে এমন একটি উপায় অবলম্বন যেন তা হয় সাশ্রয়ী, সহজলভ্য ও সর্বোপরি পরিবেশবান্ধব। এই ভিশনটির বাস্তবায়নের লক্ষ্যেই ‘Zero waste, 3 Dimentional objects’ নীতিকে কেন্দ্র করে তৈরি হয় A-POC Textile। মূলত Cotton, Nylon ও Polyurethane দিয়ে তৈরি হয় এই একক ফ্যাব্রিকটি। Industrial Weaving Machine ও Computer Programming এর মেলবন্ধনে টিউবুলার ফ্যাব্রিকটি শুধু একটা সুতার অনেকগুলো Seam এর Repetition এর মাধ্যমে তৈরি হয়।

এখন প্রশ্ন হলো, ভবিষ্যতে কেন A-POC Textile দরকার হতে পারে? এর উত্তর পেতে এই টেক্সটাইলটির কিছু উল্লেখযোগ্য ফিচার জেনে নেওয়া যাক!

• টিউব ফ্যাব্রিকটি কিছুটা oversized যাতে Neckline, Hemline, Sleeve গুলোতে কাস্টমার নিজের পছন্দসই ও সময় সাশ্রয়ী উপায়ে ডিজাইন করে কেটে নিয়ে পোশাক বানাতে পারে।
• এই ফ্যাব্রিকে কোন প্রকার সেলাই দরকার হয় না। Programming এর মাধ্যমে তৈরি পোশাকটিতে আগে থেকেই Neck, Sleeve ও আনুষঙ্গিক অংশের জন্য design বা মার্ক করা থাকে।
• যেহেতু sewing এর প্রয়োজন নেই, তাই cutting এর ফলে কোন wastage ও তৈটি হয় না যেমনটা industry তে ঘটবে। এর কারণ, পুরো টিউব ফ্যাব্রিকটিই একটি পোশাক!
• একটা মাত্র সুতা থেকে তৈরি ফ্যাব্রিক এটি। তাই backward linkage এ যেসব খরচ হতো, তা অনেকাংশে হ্রাস পায়।
• টেক্সটাইলটির strength ও adaptability যথেষ্ঠ। তবে হ্যাঁ, সবকিছুরই কিছু সীমাবদ্ধতা থাকে। এক্ষেত্রে যেমন, একরঙা এই টেক্সটাইল মূলত Computer Programming নির্ভর। ফলে স্বাভবিকভাবেই, এই পোশাক তৈরিতে বেশি শ্রমিকের প্রয়োজন পড়ে না। দক্ষ কিছু জনবল থাকলেই চলে।

এখন কথা হচ্ছে যে, এমন পোশাক তৈরির কথা মাথায় রাখলে হয়তো অনেক শ্রমিকই কর্মবঞ্চিত হবেন। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারটি হলো, Sustainability এর ক্ষেত্রে এমন টেক্সটাইলকে অগ্রাধিকার দেওয়া জরুরি। একইসাথে চলমান আধুনিক ফ্যাশন বিশ্বের সাথে তাল মিলাতে A-POC কার্যকরীও বটে!

লেখক:
তাসফিয়া জামান;
বুটেক্স

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Post

Most Popular

Related Post

Related from author