টেক্সটাইলে ন্যানোটেকনোলজির প্রভাব

0
340

বতর্মানে আমরা শিল্প বিপ্লবের যুগে বসবাস করছি,বলা যায় আমরা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে আছি।দিন দিন আমাদের বস্ত্র শিল্প বিভিন্ন ভাবে উন্নত করার লক্ষে আরো অনেক বেশি গবেষণা হচ্ছে,নতুন প্রযুক্তির ব‍্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে।এক সময় মানুষ হাতে সিলাই করতো,যায় ফলে সময়,পরিশ্রম, উৎপাদন সব কিছু কম হতো,বতর্মানে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে সব কিছু কেমন পরিবর্তন হয়েছে তা চিন্তা করলে অবাক হতে হয়।আসলে উন্নতির শেষ হয় না।আর সব শিল্প প্রতিষ্ঠান গুলো একে অন‍্যকে ছড়িয়ে যাওয়ার যে সুস্থ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বস্ত্র শিল্প আজ বিশ্বের অন‍্যতম এক বড় শিল্পী ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে।
বতর্মানে উন্নত যন্ত্রপাতি, প্রকৌশলী,গবেষক, দক্ষ শ্রমিক এবং ব‍্যবস্থাপণার মাধ্যমে আমুল পরিবর্তন এসেছে।আধুনিক প্রযুক্তির ভিতরে IE, Industry 4.0, NE technology etc
ন্যানোটেকনোলজির যাত্রা শুরু হয় ১৯৮০দকশের দিক থেকে,পরীক্ষা মুলক যাত্রা শুরু হয় পরের বছর থেকে ।1985 সালে ফুলেরিন আবিষ্কার হয় ন্যানোটেকনোলজির মাধ্যমে ।

ন্যানোটেকনোলজি কাপড়ের জন্য উচ্চ স্থায়িত্ব প্রদান করতে পারে, কারণ ন্যানো-কণাগুলির একটি বৃহৎ পৃষ্ঠের ক্ষেত্রফল থেকে আয়তনের অনুপাত এবং উচ্চ পৃষ্ঠের শক্তি রয়েছে, এইভাবে কাপড়ের জন্য আরও ভাল সখ্যতা উপস্থাপন করে এবং ফাংশনের স্থায়িত্ব বৃদ্ধির দিকে পরিচালিত করে।

এটি প্রয়োগে আমরা তিন ভাবে করতে পারি:
১.বিভাগ অনুযায়ী আবেদন।
২.টেক্সটাইল উপাদান বৈশিষ্ট্য আবেদন।
৩.পোশাক শিল্পে আবেদন।

১.বিভাগ অনুযায়ী আবেদন :
গবেষণা ও কাজের জন্যে বিভিন্ন বিভাগ করা হয়েছে, এর ফলে এক সঙ্গে বড় পরিসরে কাজ করা যায়।এটির প্রভাব বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যাচ্ছে।নিম্নে কিছু বিভাগের নাম দেওয়া হল:
কম্পোজিট ফাইবার তৈরিতে ন্যানোটেকনোলজি এবং টেক্সটাইল ফিনিশিংয়ে ন্যানোটেকনোলজি।
যৌগিক ফাইবার তৈরিতে ন্যানো প্রযুক্তিতে নিম্নলিখিত বিষয়গুলি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে
কার্বন ন্যানো ফাইবার এবং কার্বন ন্যানো কণা
ক্লে ন্যানো কণা
মেটাল অক্সাইড ন্যানো কণা
কার্বন ন্যানো টিউব
ন্যানো সেলুলার ফেনা গঠন
টেক্সটাইল সমাপ্তিতে ন্যানো প্রযুক্তি অন্তর্ভুক্ত এছাড়াও আরো অনেক বিভাগ রয়েছে যেখানে ন্যানোটেকনোলজি ব‍্যবহার করা হচ্ছে।

২.টেক্সটাইল উপাদান বৈশিষ্ট্য আবেদন:

টেক্সটাইলে বোনা দাগ প্রতিরোধী এবং বলি-প্রতিরোধী থ্রেড

বডি ওয়ার্মাররা ফেজ চেঞ্জ ম্যাটেরিয়ালস (পিসিএম) ব্যবহার করে শরীরের তাপমাত্রা পরিবর্তনের জন্য সাড়া দেয়

ন্যানো মোজা রূপা ন্যানো কণা সঙ্গে চিকিৎসা রূপা সংক্রমণ এবং গন্ধের বিরুদ্ধে কাজ করে।ন্যানোটেকনোলজি উপকরণ দিয়ে টেক্সটাইলগুলিকে চিকিৎসা করা হল টেক্সটাইলের বৈশিষ্ট্যগুলিকে উন্নত করার একটি পদ্ধতি, এটিকে দীর্ঘস্থায়ী করে তোলে, সুন্দর রঙ থাকে ইত্যাদি।এছাড়াও ক্রীড়া, প্রতিরক্ষা,নমনীয় ইলেকট্রনিক সার্কিট ইত্যাদি তে ব‍্যবহার করা হয়।

৩.পোশাক শিল্পে আবেদন:
কোন কিছুর প্রযোগ করার মাধ্যম কে আবেদন বলা যায়।অনেক পরীক্ষা করে তা সমাজের সকল মানুষের জন্য তা দেওয়া হয় যাতে তাদের জীবন যাপন একটু উন্নত আর একটু সহজ হয়। বতর্মানে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে যে পোষাক ব‍্যবহার করা হয় তা অনেক ক্ষেত্রে গুলি প্রতিরোধ করার ক্ষমতা রাখে।এটি তৈরী করতে সুতা,কাপড়ে অনেক পরিবর্তন করতে হয়েছে।কাপড় পরিষ্কারের জন্যে যে সব ডিটারজেন্ট ব‍্যবহার করছে এখন সেখানে ন্যানোটেকনোলজি ব‍্যবহার করা হচ্ছে ,যাতে মানুষের সময়,কষ্ট দুটি যেন একটু কম হয়।এভাবে ন্যানো প্রযুক্তি ব্যবহার করে টেক্সটাইলে যে বৈশিষ্ট্যগুলি দেওয়া হয় সেগুলো নিম্নে কিছু দেওয়া হলো:

জল প্রতিরোধ, মাটি প্রতিরোধ, বলি প্রতিরোধ, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়া, অ্যান্টি-স্ট্যাটিক এবং ইউভি-সুরক্ষা, শিখা প্রতিবন্ধকতা, রঞ্জক ক্ষমতার উন্নতি, স্ব-পরিষ্কার কাপড় এবং আরও অনেক কিছু

পরিশেষে বলা যায় আসলে যেকোনো প্রযুক্তি ব‍্যবহার করার আগে পরিবেশ বান্ধব এবং মানুষের জন্য এটি কোন ক্ষতি হবে কি না এটি লক্ষ্য করতে হবে।দিন দিন পরিবেশ পরিবর্তন হচ্ছে,বস্ত্র শিল্পে অনেক উচ্চ মাত্রায় রাসায়নিক পদার্থ ব‍্যবহার করা হয়,এটি যেন পরিবেশে ছাড়া আগে বিভিন্ন দিক লক্ষ্য করতে হবে।কারণ পরিবেশ ক্ষতি হলে তা আমাদের জন‍্যেই ক্ষতি হবে।আমাদের আরো বেশি গবেষণা বৃদ্ধি করে হবে যাতে আমরা আমাদের আরো বেশী উন্নয়ন করতে পারি

Md.Barkat ullah
Ahsanullah University of Science & Technology
Department of textile
Batch 40

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here