Home Technical Textile ন্যানো প্রযুক্তি ও স্মার্ট টেক্সটাইল

ন্যানো প্রযুক্তি ও স্মার্ট টেক্সটাইল

ভুমিকা:

বর্তমান   ন্যানোটেকনোলজির ব্যবহার অপরিসীম। শুধু টেক্সটাইলে না বিভিন্ন সেক্টরে ন্যানোপ্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। এই প্রযুক্তি পদার্থবিজ্ঞানে নতুন পরিসরে পরিবর্তন এনেছে। ন্যানো প্রযুক্তির হাত ধরেই স্মার্ট টেক্সটাইলের আবিষ্কার।প্রাকৃতিক উপাদান ছাড়াও মানুষ কৃত্তিম উপায়ে আশ্চর্যজনকভাবে তৈরি করেছে নতুনত্ব  সব টেক্সটাইল।স্মার্ট টেক্সটাইল তেমনই এক ধরনের টেক্সটাইল যা নান্দনিকতা সৃষ্টির পাশাপাশি পরিবেশের ক্ষতিকারক উপাদান থেকে নিজেকে রক্ষা করে। স্মার্ট পোশাক জীবনকে যেভাবে গতিময় করতে পারে অন্য কোনো ঐতিহ্যবাহী পোশাক তা পারেন।  সুতরাং স্মার্ট টেক্সটাইল পোশাক কে উন্নত করছে প্রযুক্তির অবদানের মধ্য দিয়ে।

টেক্সটাইলে ন্যানো প্রযুক্তি এবং স্মার্ট টেক্সটাইল এর ব্যবহার:

ন্যানো প্রযুক্তি সামরিক বাহিনীর  অন্তর্ভুক্ত। সামরিক বাহিনীর কাপড় রোবটিক্স সুরক্ষা, যানবাহন, অস্ত্র এবং সামরিক ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যকে আত্মরক্ষা করে। বুলেট রেজিস্ট্যান্স জাম্পশুট তৈরি করে যা আঘাত থেকে রক্ষা করে এবং রাসায়নিক বাষ্প ডিপোজিশন নামে কৌশল ব্যবহার করে হাইড্রোফোবিক পৃষ্ঠ তৈরি করতে সক্ষম।

UV সুরক্ষা:

এটি সূর্যের ক্ষতিকারক UV রশ্মি থেকে রক্ষা করে। UV রশ্মি বিকিরণ শোষণের ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে পারে এবং অত্যন্ত সংবেদনশীল।

ক্রীড়া সামগ্রী:

চলমাম জুতা,টেনিস র‍্যাকেট,গল্ফ বল, স্কিন ক্রিম এবং অন্যান্য সামগ্রী ন্যানো প্রযুক্তির মাধ্যমে উন্নত হয়েছে। বতর্মান পরিস্থিতে অন্যতম আত্মরক্ষামুলক সামগ্রী এবং মাস্ক তৈরিতেও ন্যানোটেকনোলজির ব্যবহার রয়েছে। ন্যানোফেব্রিক অত্যন্ত টেকসই, তাপ নিরোধক, সংবেদনশীল, প্রসারিত, স্থিতিস্থাপক এবং ওজনে হাল্কা

তাপমাত্রা সংবেদনশীল পোশাক:

স্মার্ট টেক্সটাইল এম্প্যারাফিন দ্ধারা আবৃত যা তাপমাত্রাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। প্যারাফিন মোম জাতীয় পদার্থ হওয়ায় এটি গরম অনূভুত   হলে তরলে পরিনত হয়ে তাপ শোষণ করে ও শীতল অনূভুত হলে কঠিন হয়ে পরিধারকারীর তাপ ধরে রাখে।

থার্মো ক্রমিক রঙ:

থার্মো ক্রমিক একটি নিদিষ্ট   তাপমাএায়  টেক্সটাইলগুলির রঙ পরিবর্তন করতে পারে।

MP3 জ্যাকেট:

ইউরোপিয়ানরা এমন কিছু জ্যাকেট আবিষ্কার করেছে যা শুধু শরিরের তাপমাত্রায় নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না,inbuilt MP প্লেয়ার  সংযুক্ত থাকে   যা দিয়ে পরিধানকারীরা গান শুনতে পারে। কিন্তু তাড়িত হবার কারনে ব্যয়বহুল।

শরীরে দূরগন্ধ দূর:

এটি পরিধান করে পরিধানকারীরা নিজেকে হালকা মনে করে। খেলোয়াড়দের জন্য উপযোগী কেননা এটি শরীরকে শুষ্ক রাখে। অ্যালোভেরার সাথে মিশিয়ে এন্টিব্যাকটেরিয়া হিসেবে কাজ করে এমন পোশাক তৈরি হচ্ছে বা শরীরের  দুর্গন্ধ দূর করে।Pic8বৈদ্যুতিন তথ্য বুদ্ধিমান টেক্সটাইল ঃ-
বৈদ্যুতিন তথ্য বুদ্ধিমান টেক্সটাইলের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এটি “পরিধানযোগ্য কম্পিউটার ” যেমন টেক্সটাইলে কিছু ইলেকট্রনিক সামগ্রী ইনস্টল করে। তাছাড়া এটি প্রধানত চিকিৎসা, সামরিক, বিমানচালনা ও অন্যান্য ক্ষেত্রে মানুষের জীবনে সুবিধা এনেছে।

উপসংহার

ন্যানোটেনোলজি বিকাশের মধ্য দিয়ে স্মার্ট টেক্সটাইলে যাত্রা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট গুলির ভেতরে একজাতীয় পোশাকসমূহের এপ্লিকেশনের দক্ষতা বাড়ালে উৎপাদন করা যেতে পারে। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে ন্যানোটেকনোলজি প্রতিটি অঞ্চলে প্রবেশ করবে সন্দেহ নেই।

তথ্যসূত্র: গুগল, উইকিপিডিয়া, টেক্সটিলেটডে

লেখক:
রিফা সানজিদা
42 তম ব্যাচ
টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ
সাউথইষ্ট ইউনিভার্সিটি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Post

Most Popular

Related Post

Related from author

error: Content is protected !! Don\\\\\\\\\\\\\\\'t Try to Copy Paste.