“পালাজ্জো”(হাল ফ্যাশনে নতুনত্বের ছোঁয়ায়, ফ্যাশন চক্রের পুনরাবৃত্তি)

0
444

সময়ের পালাবদলে এসেছে পরিবর্তন। পরিবর্তনশীল সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে, প্রতিনিয়ত বদলে যাচ্ছে ফ্যাশন ট্রেন্ড। এই বদলে যাওয়া ফ্যাশনের ভিড়েই কিন্তু আজ যা হাল তাই ফ্যাশন, আর কাল তা দূর অতীত। অন্যদিকে এই হারিয়ে যাওয়া ফ্যাশনগুলোই নান্দনিকতার ছোঁয়ায়, নতুন উদ্যমে ফিরে আসে বারবার। ফ্যাশন ট্রেন্ডের এই আসা যাওয়া সবই ঘটে, ফ্যাশন চক্রের মাধ্যমে। এ সময়ের তেমনি একটি নতুন ট্রেন্ড 'পালাজ্জো'। 

ইতিহাস
ঘুরেফিরে পুরোনো কাটছাঁট ফিরে আসে কিছুটা ভিন্ন রূপে। ঠিক যেমন সত্তর-আশির দশকের বেলবটম প্যান্ট কিংবা নব্বইয়ের দশকের ডিভাইডার প্যান্টের আদলে তারুণ্যের নতুন ফ্যাশনের নাম ‘পালাজ্জো’।

শুরুটা হয়েছিল ১৯২০ সালে। সে সময় ফরাসি ফ্যাশন ডিজাইনার ও শ্যানেল ব্রান্ডের প্রতিষ্ঠাতা কোকো শ্যানেলের হাত ধরে উপরে চাপা নীচে ঢোলা প্যান্ট প্রথম জনপ্রিয়তা পায়। দি সিক্রেটক্লজেট ডটপিকে ওয়েবসাইটের এক তথ্য অনুসারে; শ্যানেল, ভেনিসে ভ্রমণের সময় তার নিজের ডিজাইন করা নতুন ধরনের ট্রাউজার পরেন। যেটা দেখতে পাজামার মতো ঢোলা হলেও কোমড়ের দিকে প্যান্টের মতো চাপা। ১৯৩০-১৯৪০ সালের দিকে অ্যাভান্ট-গার্ডি ফ্যাশনের এই পোশাক বেশ পরিচিতি লাভ করে। তৎকালীন বিখ্যাত কিছু অভিনেত্রী এই পোশাক পরিধান করেছিলেন। ১৯৬০ দশকের শেষ এবং ১৯৭০ দশকের গোড়ার দিকে এটি বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠে। মাঝে ভাটা পড়ে গেলেও ইদানীংকালে আবারো 'পালাজ্জো' নামে পোশাকটি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

জনপ্রিয়তাঃ
ফ্যাশন পরিবর্তনশীল। এক বছর যেটি ফ্যাশনে ইন হয়, পরের বছর সেটিকে বদলে ডিজাইনাররা নিয়ে আসেন নতুনত্ব। ফ্যাশনের ম্যাজিক তো এখানেই। আভিজাত্যে ভরপুর এইসব ফ্যাশনে, নতুনত্বের ছোঁয়ায় সবসময় রমরমা থাকে পোশাকের বাজার। বর্তমান পোশাকের বাজারে জনপ্রিয়তার শীর্ষে যাওয়া পোশাকগুলোর মধ্যে খুব প্রচলিত একটি নাম হচ্ছে ‘পালাজ্জো’।

এই পালাজ্জোর ব্যামো যেন জেঁকে ধরে বসেছে প্রায় সব তরুণীকেই। । চলতি ফ্যাশন দুনিয়ায় 'পালাজ্জো' মানেই যেন আভিজাত্য। আরাম আর ফ্যাশনেবল দুটো মিলিয়েই পালাজ্জো-প্যান্টের জনপ্রিয়তা এখন আকাশছোঁয়া।

এক সময় ইউরোপ কিংবা পাকিস্তানি নারীদের মাঝে পালাজ্জোর প্রচলন বেশি দেখা গেলেও, বেশ কিছুদিন ধরেই বাঙালীদের পছন্দের পোশাক হিসেবে এটি দেখা যাচ্ছে। এমনকি ঘুরেফিরে সেই পাজামা প্যান্ট বা 'পালাজ্জো' এখন হলিউড-বলিউড এর অভিনেত্রীদের পায়েও দেখা যাচ্ছে।  

শেষ কথাঃ
পালাজ্জোর প্রতিদ্বন্দ্বী যেন ‘পালাজ্জো’ নিজেই। পশ্চিমা ফ্যাশনের ধারায় পালাজ্জোর জন্ম হলেও, এ দেশে এই পোশাকটি গোড়াপত্তনের সময়ই বদলে গিয়ে, এতে যোগ হয়েছে দেশীয় কাটছাঁট।

পরিশেষে বলা যায়- পুরোনো অনেক পোশাকই নতুন রূপে, নতুন ঢঙে হালের ফ্যাশন হয়ে আবারো ধরা দিচ্ছে বর্তমানের কোঠায়। 'পালাজ্জো' যেন তারই একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ। 

তথ্যসূত্রঃ

bdnews24.com

এমএনএ ফিচার ডেস্ক

সমকাল

যুগান্তর

লেখিকা পরিচিতিঃ
আছিয়া আক্তার
১ম বর্ষ, ব্যাচ-২৪
সেশনঃ ২০১৯-২০২০
বস্ত্রপরিচ্ছদ ও বয়নশিল্প বিভাগ
বাংলাদেশ গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here