ফ্যাশন ডিজাইনারদের রাজত্ব

0
644

সর্বাধিক পরিচিত মডেল এবং সেলিব্রিটিদের ব্যবহৃত সর্বাধিক মনোরম এবং মহিমান্বিত পোশাকগুলোর ডিজাইন তৈরি হয়ে থাকে বিশ্বের বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনারদের হাত ধরেই।তাদের অনন্য দক্ষতা এবং প্রতিভা দিয়ে তারা ফ্যাশন শিল্প এবং বিশ্ববাজারে অনেকের মন কেড়েছেন।আর তাদের সৃষ্টি গুলোই অনেক মানুষকেই একজন ফ্যাশন ডিজাইনার হওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে।

তাদের প্রতিটি ডিজাইন বা নকশা বিশ্বব্যাপী শত শত এবং হাজার ডলারে বিক্রয় হচ্ছে।এই জনপ্রিয় ব্যক্তিরাই আজ বিশ্বকে দেখিয়েছে যে তারা কতটা দক্ষ ও সমৃদ্ধ।Prada, Armani, D&G এবং Gucci সহ আরও অনেক ফ্যাশন নেতারা ফ্যাশনের বিশাল বিশ্বকে নিজ হাতে গড়ে তুলতে সফল হয়েছেন।তারা বিশ্বজুড়ে অনেক নারী ও পুরুষের হৃদয়কেও মুগ্ধ করেছেন।বিশ্বজুড়ে তাদের এই সাফল্যের অর্জন জন্য পাড়ি দিতে হয়েছে অনেকদূর পথ।এবার বিশ্বের কিছু ফ্যাশন ডিজাইনারদের সফলতা সম্পর্কে জেনে নিই,যাদের হাত ধরেই ফ্যাশন জগৎ আজ এতো সমৃদ্ধ-

১.Ralph Lauren :

বিখ্যাত ডিজাইনার হওয়ার আগে,তাকে খুচরা ব্যবসায় প্রথমে কাজ করতে হয়েছিলো এবং খুব শীঘ্রই তিনি পোশাক,সুগন্ধি,আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র এবং আসবাবপত্র ও যুক্ত করে ফেলেন। ১৯৬৭ সালে তিনি “Ralph Lauren Corporation” গঠন করেন যা নিউইয়র্ক সিটিতে অবস্থিত। লরেনের সমস্ত অসাধারণ স্টাইল এবং ফ্যাশন সেট মাস্টারওয়ার্ক হিসেবে পরিচিত।Forbes এর মতে লরেনের মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

২.Giorgio Armani :

জর্জিও আরমানি,যিনি প্রথম রেড কার্পেট ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন এবং তিনি মেনসওয়্যার উদ্ভাবনের জন্য খুব জনপ্রিয়,যা বিশ্বজুড়ে প্রতিটি পুরুষের আকাঙ্ক্ষা কে মোহিত করে।১৯৭৫ সালে নিজের ব্যবসা শুরু করার পর তিনি ফুটবল ক্রীড়াবিদ এবং ইতালিয়ান অলিম্পিয়ানদের অনেক মহিমান্বিত পোশাক তৈরি করেছিলেন। ২০০৮ সালে “The Dark Knight” মুভিতে অভিনেতা Bruce Wayne এর ব্যবহৃত পোশাকের ডিজাইনার ছিলেন আরমানি।Grammy Awards এবং MTV ইত্যাদি হাই-প্রফাইল ইভেন্টে পরিধান করার জন্য লেডি গাগার পোশাকের অনেকগুলো খসড়া ডিজাইনও করেছেন তিনি।Forbes এর মতে আরমানির মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৮.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

৩.Jimmy Choo :

একজন মালয়েশিয়ান ফ্যাশন স্টাইলিস্ট,যিনি তার হাতের খোদাই করা মহিলাদের জুতার ডিজাইন এর জন্য বিখ্যাত হয়েছিলেন।একজন প্রতিভাবান এবং অনন্য কারিগর হওয়ার কারনে Choo বিশ্বজুড়ে সর্বাধিক স্টাইলিশ জুতা তৈরিতে সফল হয়েছিলেন এবং তার প্রথম নকশাটি দেখা যায় Vogue এ।১৯৯৬ সালে “Jimmy Choo Ltd” প্রতিষ্ঠা করেন।এখানে আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র,হ্যান্ডব্যাগ এবং সুগন্ধি ও বিক্রয় করা হয়।Choo অভিযোগ করেছেন যে তিনি প্রিন্সেস ডায়ানার জুতার প্রস্তুতকারক। The Richest এর মতে তার মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

৪.Jean-Paul Gaultier :

ফ্যাশন বিশ্বজুড়ে সর্বাধিক প্রভাবশালী ফরাসি ডিজাইনার হিসেবে বিবেচিত,Jean-Paul Gaultier কাস্টম-ফিটযুক্ত পোশাকের কাজটিতে দক্ষতা অর্জন করেছিলেন যা তার High-end Custom Designs এবং প্রে-টু-পোর্টার বা রেডি টু ওয়্যার পোশাকের সাথে মিলে যায়।তিনি ফ্যাশন বিশ্বে খ্যাতি অর্জন করতে এবং তার অসাধারণ স্টাইল প্রদর্শন করতে সফল হন।১৯৮২ সালে তিনি তার ডিজাইনের ব্যবসায় প্রবর্তনের পরে,তার কাজগুলো বেশ পরিচিতি অর্জন করে।The Richest এর মতে তার মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

৫.Marc Jacobs :

আরও একজন ফ্যাশন ডিজাইনার যিনি তার ডিজাইনের জাদু দিয়ে ফ্যাশন জগৎকে জয় করেছেন তিনি হলেন মার্ক জ্যাকবস।১৯৮৬ সালে জ্যাকবস তার নকশা গুলো সংগ্রহের আগে এবং Mark Jacobs Label আনুষ্ঠানিক ভাবে উপস্থাপন করার আগে তিনি নিউইয়র্কের একটি পোশাকের দোকানে স্টকবয় হিসেবে কাজ করতেন।একজন মেধাবি পরিচালক হিসেবে তিনি Louis Vuitton এর সাথে যুক্ত ছিলেন এবং একটি গ্রন্থাগার স্থাপন করেছিলেন যা ছিলো তার একটি বড় সাফল্য। বর্তমানে জ্যাকব পুরো বিশ্বজুড়ে ২০০ টিরও বেশি দোকান পরিচালনা করেন এবং তা তার মালিকানাধীন। The Richest এর মতে তার মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

৬.Roberto Cavalli :

তিনি গ্ল্যামারাস প্রিন্ট স্টাইল,লেদার-ওয়্যার এবং ডেনিমের জন্য জনপ্রিয়। রবার্তো কাভাল্লি বিশ্বজুড়ে প্রভাবশালী ফ্যাশন স্টাইলিশদের মধ্যে একজন। কাভাল্লি ১৯৬০ এর দশকে তার ট্রেডমার্ক চালু করার পরে,তিনি মেনসওয়্যার তৈরি এবং চশমার ডিজাইন নিয়ে কাজ শুরু করেন।তার ব্যবসার সামগ্রীর মধ্যে আছে টিন-এজ দের জন্য আন্ডারওয়্যার,সুগন্ধি,গহনা এবং আনুষাঙ্গিক সামগ্রী।The Richest এর তথ্যানুসারে তার মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এর উপরে।

৭.Calvin Klein :

ক্যালভিন ক্লেইন তার সিগনেচার ডিজাইন গুলোর মাধ্যমে আজ সারাবিশ্বে তার নাম ছড়িয়ে দিয়েছেন। ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে পড়াশোনা এবং পোশাক প্রস্তুতকারক হিসেবে প্রশিক্ষন শেষে তিনি নিজস্ব কোম্পানি চালু করেছিলেন। তার কোম্পানি বিশেষায়িত পোশাক এবং স্যুট ডিজাইন করেছিলো। বর্তমানে Calvin Klein Inc. এর সদরদপ্তর Midtown Manhattan এ অবস্থিত যেখানে পারফিউম,গহনা এবং স্পোর্টসওয়্যার তৈরি হয়।The Richest এর মতে ক্লেইনের মোট সম্পদের পরিমাণ আনুমানিক ৭০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

৮.Valentino Garavani :

সহজভাবে তিনি ভ্যালেন্টিনো নামে পরিচিত।এই ৮৩ বছর বয়সী অসংখ্য বছর ধরে ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে রয়েছেন এবং প্রচুর অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন।তিনি কিছু লাক্সারি ফ্যাশন হাউজে যেমনঃ Guy Laroche এবং Deese’s এ কাজ করেছেন এবং এরপর তিনি ১৯৬০ সালে ইতালিতে “Valentino Spa” প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্টলেডি জ্যাকুলিন কেনেডির জন্য পোশাক তৈরি করেছিলেন।ভ্যালেন্টিনোর ডিজাইন গুলো একজন নারীকে অনেক বেশি আকর্ষণীয় করে তোলে। তার তৈরি একটি জনপ্রিয় কাপড়ের নাম হচ্ছে “Valentino Red”।The Richest এর তথ্য অনুযায়ী তার মোট সম্পদের পরিমাণ ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

৯.Miuccia Prada :

যদিও তার দাদা এবং তার পরিবারের কেউই রাজি ছিলেন না পরিবারের কোন মহিলা সদস্য ব্যবসার সাথে জড়িত হোক, তবুও ১৯৭০ সালে Miuccia Prada তার দাদার কোম্পানিতে যোগদান করেছিলেন। তখন কেউই আশা করতে পারেননি যে একটি ছোট চামড়ার সামগ্রীর দোকান একদিন বিশ্বজুড়ে সর্বাধিক সুপরিচিত এবং সম্মানিত বিলাশবহুল ফ্যাশন ব্যবসায় পরিনত হবে।এখন Prada হ্যান্ডব্যাগ,লাগেজ,জুতা সহ মিনিম্যালিস্টিক সমর্থন করে এমন বিশাল ফ্যাশন স্টক নিয়ে৷ ব্যবসা করছেন।Forbes এর মতে তার মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ২.৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে যেয়ে পৌছেছে।

১০.Dolce & Gabbana :

Domenico Dolce এবং Stefano Gabbana হলেন দুই জনপ্রিয় ইতালিয়ান ফ্যাশন স্টাইলিস্ট যারা যৌথভাবে ১৯৮৫ সালে Dolce & Gabbana ফ্যাশন হাউজটির পরিচালনা শুরু করেন।তারা আন্ডারওয়্যার,সুইমিং কস্টিউম এবং পারমিউম নিয়ে কাজ শুরু করেন এবং সম্প্রতি জুতা,হ্যান্ডব্যাগ এবং অন্যান্য প্রসাধনী ও যুক্ত হয়েছে। Born Rich এর তথ্যের ভিত্তিতে তাদের যৌথভাবে মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৫.৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

আমরা প্রত্যেকেই অনন্য।আমরা যেই কাপড়টি পছন্দ করি তা আমাদের ব্যক্তিত্ব এবং আবেগের সাথে মেলানোর চেষ্টা করি।এই ফ্যাশন ডিজাইনাররা ফ্যাশন ব্যবসায় এতো বেশি পরিশ্রম করে যাচ্ছেন যে পোশাকের উল্লেখযোগ্য টুকরো গুলো প্রতিটি বিশেষ ব্যক্তির চাওয়া গুলোকে সমন্বিত করে।সৃজনশীলতা এবং শৈল্পিক প্রতিভা দিয়ে মন জয় করে যাচ্ছেন কোটি কোটি মানুষের।

তথ্যসূত্রঃ Google,Forbes,The Richest,Born Rich

লেখক:
মোহাম্মদ আরশিল আজীম
Batch: 201
Department of Textile Engineering
BGMEA University of Fashion & Technology(BUFT)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here