Saturday, April 13, 2024
More
    HomeTextile Manufacturingহার্ট রেট ট্র্যাক করে এমন ফেব্রিক !

    হার্ট রেট ট্র্যাক করে এমন ফেব্রিক !

    পোশাক মানুষের তিনটি প্রাথমিক চাহিদার মধ্যে একটি। আদিম যুগ থেকেই মানুষ নৌকার পাল, তাঁবু, দড়ি এবং পোশাকের জন্য টেক্সটাইল ব্যবহার করে আসছে। তবে তখন টেক্সটাইল কেবল সাধারণ দৈনন্দিন কাজ সম্পাদনের জন্য ব্যবহৃত হত। আজ প্রযুক্তি এতটাই উন্নত এবং অভিযোজিত হয়ে উঠেছে যে এমন ম্যাটেরিয়ালও রয়েছে যা পরিবেশগত অবস্থার বা তাপীয়, যান্ত্রিক, বৈদ্যুতিক এবং চৌম্বকীয় সহ বিভিন্ন বাহ্যিক উদ্দীপনার পরিবর্তনের সাথে সাথে প্রতিক্রিয়া দেখায়।

    যুক্তরাজ্য প্রতিষ্ঠিত স্মার্ট টেক্সটাইল সংস্থা Kymira টি-শার্টের এমন একটি প্রোটোটাইপ চালু করেছে যা পরিধানকারীর হার্ট রেট পর্যবেক্ষণ করতে পারে যাতে করে ক্রীড়াবিদদের হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমানো সম্ভব। ফার্মটি এমন অ্যাথলেটিজার তৈরি করেছে যা বেতার ভাবে ব্লুটুথ ব্যবহার করে স্মার্টফোনে পরিধানকারীর হৃৎস্পন্দন প্রেরণ করে এবং হার্টের অনিয়মিত ছন্দ সনাক্ত করতে পারে যা কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের কারণ হতে পারে।

    এই কাপড়গুলি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যে ইলেক্ট্রোডগুলি টি-শার্টের হাতার ফেব্রিক ফিডে বসানো হয় এবং প্রসেসিং ইউনিট ইসিজি ডেটা স্মার্টফোনে স্থানান্তর করে। সংস্থাটি একটি অ্যালগরিদম তৈরি করেছে যা ডেটা প্রক্রিয়াকরণ করে অবাঞ্ছিত নয়েজ ফিল্টার করে শুধু অনিয়তিম হৃৎস্পন্দন সনাক্ত করে।

     
    Kymira এর সিইও এবং প্রতিষ্ঠাতা টিম ব্রাউনস্টোন বলেছেন: “আমরা আশা করি যে এই পণ্যটি যারা দীর্ঘস্থায়ী হৃদরোগে ভুগছেন তাদেরকে সহায়তা করার জন্য এবং সম্ভাব্য কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট সম্পর্কে তাদের সতর্ক করতে ক্লিনিকাল উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হবে।”

    ইসিজি ছাড়াও এই স্পোর্টসওয়্যারটি ক্রীড়াবিদদের পারফরম্যান্স বাড়ানোর জন্য শরীরের তাপমাত্রা বজায় রাখতে সহায়তা করে। ফেব্রিক গুলিতে এম্বেডেড থাকা মিনারেল গুলি ব্যবহার করে ব্যায়ামের সময় শরীর দ্বারা শক্তি নির্গত হয়, যা পুনরায় ইনফ্রারেড শক্তি হিসাবে পেশীগুলিতে প্রবেশ করে। Kymira এর মতে, এই প্রক্রিয়াটি টিস্যু অক্সিজেনের মাত্রা প্রায় ২০ শতাংশ বাড়িয়ে তোলে এবং ব্যায়ামের পরে পেশীর ব্যথা কমাতে সহায়তা করে।

    স্মার্ট টেক্সটাইলের প্রবর্তন প্রযুক্তির এমন এক যুগের সূচনা করেছে যেখানে এখনও অনাবিষ্কৃত জিনিসের সংখ্যা অনেক। তাই কারো কারো কাছে তাদের সায়েন্স ফিকশন ফ্যান্টাসি কে সত্যে পরিণত করার একটি উপায় হতে পারে স্মার্ট টেক্সটাইল। 

    একবিংশ শতাব্দী মানবজীবন উন্নত করতে অভিনব সব উদ্ভাবন নিয়ে এসেছে। টেকনোলজি এম্বেডেড উভেন ফেব্রিক টেক্সটাইল শিল্পে একটি বিপ্লব আনবে। 

    তাই ভবিষ্যতে যদি শীতের সময় আপনার হাতের গ্লাভস সহজ একটা কমান্ডের ফলে গরম হয়ে উঠে অথবা নাচের সময় গানের বীটের সাথে সাথে কাপড়ের রঙ পরিবর্তন হয়ে যায় তাহলে চমকে যাবেন না কিন্তু! কারণ স্মার্ট টেক্সটাইলে কিছুই অসম্ভব নয়।

    তথ্যসূত্র:  technicaltextile.net

    Writer information:

    Fahim Zannat Minar
    Textile Engineering (3rd Batch)
    Jashore University of Science and Technology

    RELATED ARTICLES

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    - Advertisment -

    Most Popular

    Recent Comments