Thursday, February 29, 2024
More
    HomeDyeingThermosol Dyeing Process

    Thermosol Dyeing Process

    আজকে আমরা যে ডাইং প্রসেস সম্পর্কে জানবো, তা হলো Thermosol Dyeing Process. এই Thermosol Dyeing পদ্ধতিটি Disperse dye এর continuous dyeing process এর অন্তর্ভুক্ত যেখানে কিনা পলিয়েস্টার অথবা পলিয়েস্টার এর সাথে অন্যান্য সেলুলোজিক ফাইবারের ব্লেন্ডেড প্রোডাক্টের ডাইং করা হয়। এই ডাইং প্রসেসটি অনেক বেশি তাপমাত্রায় সম্পন্ন করতে হয়। প্রায় ১৮০ থেকে ২২০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা প্রয়োজন হয়। ফ্যাব্রিক এবং ইয়ার্ন এর স্ট্রেন্থ অপরিবর্তিত রাখতে এবং কাঙ্ক্ষিত ডাইং শেড পাওয়ার জন্য এই প্রসেসে ডাইং টাইম সঠিকভাবে মেনে চলতে হয়।

    Thermosol Dyeing Process এর ডাইং সিকুয়েন্স নিম্নরুপ:

    ১) Padding, ২) Drying, ৩) Thermo fixing, ৪) After Treatment

    Thermosol Dyeing Process এর ডাইং সিকুয়েন্সটি ১৯৪৯ সালে Du Pont Corporation ডেভেলপ করে। এই প্রসেসে পর্যাপ্ত তাপমাত্রার উপস্থিতিতে প্রথমেই ফাইবারের অভ্যন্তরীণ মলিকুলার বন্ড গুলোকে ভাঙ্গা হয়। ফাইবারের অভ্যন্তরীণ মলিকুলার বন্ড গুলো অবমুক্ত হওয়ার কারনে ডাই মলিকুল অনেক সহজেই ফাইবারের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে পারে। প্রোডাকশন ফ্লোর অনুযায়ী যদি হিসেব করি, তাহলে ২২০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় ডাই মলিকুলের প্রবেশের জন্য মোটামুটি দেড় থেকে দুই মিনিট সময়ই যথেষ্ট।

    Thermosol Dyeing Process এ ভালো ডাইং শেড পাওয়ার জন্য ডাই মলিকুলগুলোর যে সকল বৈশিষ্ট থাকতে হবে;

    ১) ভালো মানের ডিস্পারসিং প্রোপার্টি থাকতে হবে। ভালো করে যদি বুঝিয়ে বলি তাহলে তাপমাত্রার কারনে ফাইবার এর মলিকুল এবং ডাই মলিকুল্গুলো অনবরত কাঁপতে থাকে। আর সমগ্র ফেব্রিকের সার্ফেসে বা পৃষ্ঠদেশে ডাই মলিকুল্গুলো ছড়িয়ে পড়ে। এই অবস্থাতেই কিন্তু ডাই মলিকুল্গুলো ফাইবারের মধ্যে প্রবেশ করে। এই ঘটনাটিই ডাই মলিকুল্গুলোর ডিস্পারসিং প্রোপার্টি।

    ২) ভালো পেনেট্রেশন থাকা অর্থাৎ ফাইবারের মধ্যে ডাই মলিকিউল্গুলোর প্রবেশ। এইখানেও যদি বলি তাহলে, ডাই মলিকুল্গুলো যদি ভালো ভাবে ফাইবারের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে না পারে তাহলে আমরা ভালো ডাইং শেড পাবো না। একরকম দেখা যাবে যে, প্রথম ওয়াশেই সব ডাই ফেব্রিক থেকে পানির সাথে চলে যাচ্ছে।

    ৩) ভালো ফিক্সেশন প্রোপার্টি থাকা। ধরে নেওয়া যাক যে, ডাই মলিকুল্গুলো ভালো ভাবে ফাইবারের অভ্যন্তরে প্রবেশ করলো। এখন যদি ডাই মলিকুল্গুলো ভালোভাবে ফাইবারের সাথে বন্ড তৈরি করতে না পারে অর্থাৎ মলিকুল্গুলো পরস্পরের সাথে ভালোভাবে যুক্ত থাকতে না পারে, তাহলেও কিন্তু আমার ফাইনাল প্রোডাক্টের কোয়ালিটি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তাই ডাই মলিকুল্গুলোর ভালো ফিক্সেশন প্রোপার্টি থাকা অতিব জরুরী।

    Thermosol Dyeing এ Padding process এর কিছু শর্ত রয়েছে। তা নিম্নে দেওয়া হলো:

    ১) প্যাডিং মেঙ্গেল মেশিনে প্যাডিং লিকারে সব সময় একইরকম তাপমাত্রা নিশ্চিত করা।
    ২) প্যাডিং করার সময় ফেব্রিকের প্রস্থ বরাবর ফ্রেশ প্যাডিং লিকারের সমপরিমান বন্টন ফেব্রিকের সমস্ত সার্ফেসে নিশ্চিত করা।
    ৩) পর্যাপ্ত সময় ধরে ফেব্রিকের সাথে প্যাডিং লিকারের সংস্পর্শ নিশ্চিত করা। বিশেষত যে সকল ফেব্রিকের wettability বা পানির সাথে সংযুক্ত হওয়ার পরিমান কম সেই ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা।

    ডাইং রেসিপি:

    ১) লাইট শেডের জন্য: (0.৫%)

    ডিস্পারসিং এজেন্টঃ 0.৫ গ্রাম/লিটার
    লেভেলিং এজেন্টঃ 0.৫ সিসি/লিটার
    সিকুয়েস্টারিং এজেন্টঃ 0.৫ সিসি/লিটার
    থিকেনারঃ ৩ গ্রাম/লিটার
    এসিটিক এসিডঃ 0.৫ সিসি/লিটার
    টাইমঃ ৩০-৫০ সেকেন্ড
    তাপমাত্রাঃ ১৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াস
    PH: ৪.৫ থেকে ৫.৫

    ২) মিডিয়াম শেডের জন্য: (১.৫%)

    ডিস্পারসিং এজেন্টঃ 0.৮ গ্রাম/লিটার
    লেভেলিং এজেন্টঃ 0.৮ সিসি/লিটার
    সিকুয়েস্টারিং এজেন্টঃ 0.৮ সিসি/লিটার
    থিকেনারঃ ৪ গ্রাম/লিটার
    এসিটিক এসিডঃ 0.৫ সিসি/লিটার
    টাইমঃ ৩০-৫০ সেকেন্ড
    তাপমাত্রাঃ ১৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াস
    PH: ৪.৫ থেকে ৫.৫

    ৩) ডিপ শেডের জন্য: (৩%)

    ডিস্পারসিং এজেন্টঃ ১.৮ গ্রাম/লিটার
    লেভেলিং এজেন্টঃ ১.0 সিসি/লিটার
    সিকুয়েস্টারিং এজেন্টঃ ১.0 সিসি/লিটার
    থিকেনারঃ ৫ গ্রাম/লিটার
    এসিটিক এসিডঃ 0.৫ সিসি/লিটার
    টাইমঃ ৩০-৫০ সেকেন্ড
    তাপমাত্রাঃ ১৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াস
    PH: ৪.৫ থেকে ৫.৫

    বিঃদ্রঃ এইখানে তিন ধরনের শেডের জন্য, তিনটি টেক-আপ পারসেন্টেজের মান দেওয়া হলো। তাহলে, লাইট শেডের জন্য: (0.৫%) এর মানে দাঁড়ায় যে, ১০০ গ্রাম ওজনের একটি ফেব্রিকে 0.৫ গ্রাম ডাই দিলে, আমার ফেব্রিকের টেক-আপ পারসেন্টেজের মান হবে 0.৫%। মিডিয়াম শেডের জন্য: (১.৫%) এর মানে দাঁড়ায় যে, ১০০ গ্রাম ওজনের একটি ফেব্রিকে ১.৫ গ্রাম ডাই দিলে, আমার ফেব্রিকের টেক-আপ পারসেন্টেজের মান হবে ১.৫%। ডিপ শেডের জন্য: (৩%) এর মানে দাঁড়ায় যে, ১০০ গ্রাম ওজনের একটি ফেব্রিকে ৩ গ্রাম ডাই দিলে, আমার ফেব্রিকের টেক-আপ পারসেন্টেজের মান হবে ৩%।

    ডাইং প্রসিডিউর:

    ১) প্রথমেই আমাদের ফেব্রিককে প্যাডিং মেঙ্গেল মেশিনে উপরের ডাইং রেসিপি অনুযায়ী প্যাডিং করা হয়।
    ২) প্যাডিং পর ফেব্রিককে ১০০°সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ড্রায়ারে শুকানো হয়। এইখানে ড্রাইং প্রসেস বা শুকানোর কাজে ইনফ্রারেড ড্রাইং পদ্ধতিই সবচেয়ে সুবিধাজনক।
    ৩) এরপরে ফেব্রিককে Thermasol Unit এর মধ্যে দিয়ে প্রবেশ করানো হয়। এই পর্যায়েই কিন্তু Thermo Fixing প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। আর এই সময়েই ৭৫-৯০% ডাই ফেব্রিকের সাথে বন্ড তৈরি করতে সমর্থ হয়।
    ৪) Thermo Fixing প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর, অতিরিক্ত ডাই মলিকুল্গুলোকে পরিস্কার করার জন্য থিকেনার এবং অন্যান্য কেমিক্যালের মাধ্যমে পানির সাহায্যে পরিস্কার করা হয়। এরপর প্রয়োজন অনুসারে Soap Wash অথবা Reduction Cleaning করা হয়।

    লিখাটি লিখতে যে সকল সোর্সের সাহায্য নেওয়া হয়েছে:
    1)https://www.researchgate.net/publication/293780065_Dyeing_of_polyester_blend_fabrics_by_thermosol_process
    2)https://www.academia.edu/2532334/Pad_Thermosol_Dyeing_Polyester_with_Disperse_Dyes

    Writer information:
    Badhon Saha
    Institution: Primeasia University
    Batch: 181

    RELATED ARTICLES

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    - Advertisment -

    Most Popular

    Recent Comments